Tue, 14 Aug, 2018
 
logo
 

ঈদের আগে শ্রমিকের বেতন ও পূর্ণ বোনাসের দাবিতে মানববন্ধন

লাইভ নারায়নগঞ্জ: ঈদের আগে শ্রমিকের বেতন ও পূর্ণ বোনাস পরিশোধের দাবিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বৃহস্পতিবার(৭ জুন) সকাল ১১ টায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি হাফিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাাপতি হিমাংশু সাহা, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি হাফিজুর রহমান, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতি নারায়ণগঞ্জ জেলার আহ্বায়ক অঞ্জন দাস, গার্মেন্টস ওয়ার্কার্স ট্রেড ইউনিয়ন ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ডা. সামছুল আলম, গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি এম. এ শাহীন, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম গোলক, সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম শরীফ, জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক এইচ রবিউল চোধুরী, নাসির হোসেন।

 ঈদের আগে শ্রমিকের বেতন ও পূর্ণ বোনাসের দাবিতে মানববন্ধন

নেতৃবৃন্দ বলেন, বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুই ঈদে বেসিক বেতনের সমান বোনাস দেওয়ার রেওয়াজ থাকলেও সরকার শ্রম আইনে বোনাসের বিষয় উল্লেখ না করে শ্রমিকদের বঞ্চিত করার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। কিন্তু ঊৎসব বোনাস কোন দয়া নয়, এটা শ্রমিকের অধিকার।

 

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, শ্রম মন্ত্রী সকল পোষাক শিল্প শ্রমিকের বেতন ১০ জুন ও বোনাস ১৪ জুনের মধ্যে পরিশোধের ঘোষণা দিয়েছেন। মন্ত্রী এখানে শ্রমিকদের দাবি উপেক্ষা করে সম্পূর্ণ মালিকদের স্বার্থকে রক্ষা করেছেন। মালিকরা ঈদের ছুটির পুর্ব মূহুর্ত পর্যন্ত শ্রমিকদের বোনাস-বেতন পরিশোধ না করে শ্রমিকদের জিম্মি করে। ঈদের আগ মুহুর্তে শ্রমিকরা যখন স্বজনদের সাথে মিলিত হওয়ার জন্য উদগ্রীব হয় তখন মালিকরা শ্রমিকদের বোনাস না দিয়ে বকশিশ হিসাবে কিছু টাকা দিয়ে আর আংশিক বেতন দিয়ে শ্রমিকদের সাথে প্রতারণা করে। শ্রমিকদের তখন প্রতিবাদ করার কোন সুযোগ থাকে না। প্রশাসন এখানে প্রতারক মালিকদের পক্ষাবলম্বন করে। ঠিকমত বেতন-ভাতা না পেয়ে শ্রমিকরা অল্প ভাড়ায় ঝুঁকি নিয়ে গ্রামে যেতে পথে অপরিসীম দূর্ভোগের শিকার হয়, এমনকি অনেকে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করে। পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদ উৎসব পালনের স্বপ্ন মর্মান্তিক দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়।

 

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে শ্রমিকদের প্রাপ্য বেতন-বোনাস পরিশোধের আহবান জানিয়ে বলেন, বেতন-বোনাস নিয়ে টালবাহানা করলে উদ্ভুত পরিস্থিতির দায় মালিক ও প্রশাসনকে বহন করতে হবে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম