Wed, 20 Jun, 2018
 
logo
 

চালচলের অনুপযোগী ফতুল্লার সড়ক ‘রাস্তায় পানি আর কাঁদা’


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বড় বড় গর্ত আর খানাখন্দের কারণে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে ফতুল্লার বেশ কিছু সড়ক। ভাঙা রাস্তার কারণে প্রতিদিন ঘণ্টার পর ঘণ্টা তীব্র যানজটে আটকে পড়ে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যাত্রী ও এলাকাবাসীকে। তার উপর গত কয়েক দিনের বৃষ্টির জমে থাকা পানি দূর্ভোগ আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়ক, ফতুল্লা স্টেডিয়াম থেকে পাগলা সড়ক, শিবু মার্কেট থেকে হাজীগঞ্জ, সস্তাপুর, মাসদাইর, বিসিক শিল্প নগরীসহ বেশি কিছুসহ এচিত্র। বৃষ্টি থেমেছে সোমবার (২১ মে) সকালেই। অথচ, খানাখন্দের কারণে পানি জমে রয়েছে। দেখলে মনে হয়েছে, ডুবে যাওয়া সড়কগুলোর কোথাও কোথাও চর জেগে ওঠেছে।

চালচলের অনুপযোগী ফতুল্লার সড়ক ‘রাস্তায় পানি আর কাঁদা’
আর পানি জমে থাকা সেসব ভাঙা রাস্তায় কোনোমতে গাড়ি চললেও মানুষের হেঁটে চলার উপায় নেই বললেই চলে। বৃষ্টি শেষে চিত্রটা ভিন্ন হলেও ভোগান্তির মাত্রা বাড়ছেই।
ফতুল্লার তক্কারমাঠ এলাকার বাসিন্দা জসীম বলেন, বৃষ্টি হলে রাস্তা পানির নিচে, বৃষ্টি থেমে গেলেও রাস্তায় পানি আর কাঁদা। গাড়িতে গেলে মনে হয় কখন গাড়ি কাত হয়ে পড়বে, আর হেঁটে যাওয়ারও কোনো উপায় নেই।
বৃষ্টি থামলেও দীর্ঘদিন ধরে এমন অবস্থায় থাকে, যেদিকে কর্তৃপক্ষের কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই বলে অভিযোগ করেন তিনি।

চালচলের অনুপযোগী ফতুল্লার সড়ক ‘রাস্তায় পানি আর কাঁদা’
ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়কের বিসিক এলাকায় দেখা যায়, বৃষ্টি থামলেও রাস্তায় পানি রয়েছে আগের মতোই। গাড়ি চললেই পানি উপচে ওঠে পাশের দোকানে।
সস্তাপুর এলাকায় বাবলু নামের এক ওষুধের দোকানি বলেন, বৃষ্টি হলেই ভোগান্তি শুরু হয়, যা বৃষ্টি শেষ হওয়ার অনেকদিন পর্যন্ত অব্যাহত থাকে। গাড়ি চললেই রাস্তার কাদাপানি সিটকে দোকানে ওঠে। কোনোমতে আটকে রাখা হয়েছে। মানুষজন হাঁটতেই পারছেন না আর আমাদের দোকানে আসবেন কীভাবে?
এ পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ মিলবে কবে সেই উত্তর জানা নেই, তবে এ দুর্ভোগ লাঘবে শিগগিরই কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এখানকার ভুক্তভোগীরা।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম