Mon, 18 Feb, 2019
 
logo
 

মুক্তিযোদ্ধার বসতবাড়ি ভেঙ্গে রাস্তা করার হুমকি, কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে জিডি


সিদ্ধিরগঞ্জ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ:
নারায়ণগঞ্জ মহানগরের ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো: ইকবাল হোসেন এর সহযোগিতায় অসুস্থ্য বীর মুক্তিযোদ্ধার পাকা বসতবাড়ী ভেঙ্গে জোরপূর্বক রাস্তা করার অভিযোগ তুলে মোস্তফা ও সালাম গংদের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করেছে কানিজ ফাতেফা নামে এক মহিলা।

গত বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারী) সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় এই জিডি করা হয়। যার নং- ৩৩৬।
এসসিসির ২ নং ওয়ার্ডের মিজমিজি কান্দাপাড়া এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম পাটোয়ারীর স্ত্রী কানিজ ফাতেমা জিডিতে উল্লেখ করেছেন, খোর্দ্দঘোষপাড়া মৌজায় সোয়া ৫ শতাংশ জমি কিনে ১ তলা পাকা বসতবাড়ী নির্মাণ করে বিগত ১৫ বছর ধরে বসবাস করছেন। তাদের বাড়ীর সামনে দিয়ে সিটি কর্পোরেশনের ১৪ ফুট প্রশস্থ একটি প্রধান সড়ক রয়েছে। সে রাস্তায় ৭ ফুট জমি ছাড়া হয়েছে। তার বাড়ীর পিছনের অংশের দুই প্রতিবেশী মোস্তুফা (৪৫) ও সালাম (৬২) নিজ সুবিধার্থে ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের সহযোগিতায় বসতবাড়ী ভেঙ্গে রাস্তা নির্মাণ করার উদ্যোগ নিয়েছে। ৩ দিনের মধ্যে বাড়ী ভেঙ্গে রাস্তার জন্য জায়গা না দিলে কাউন্সিলর ইকবাল তার লোকজন দিয়ে বাড়ী ভেঙ্গে ফেলার হুমকি প্রদান করেন। তাই বাড়ী রক্ষা করার জন্য তিনি থানায় জিডি করেন। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মো: রফিকুল ইসলাম জিডির তদন্তকারী কর্মকর্তা নিযুক্ত হয়েছেন।
এ বিষয়ে কাউন্সিলর মো: ইকবাল হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি জানায়, সিটি কর্পোরেশনের এম জি এস পি প্রকল্পে ২নং ওয়ার্ডে ৭টি রাস্তা নির্মাণের মধ্যে ওই রাস্তাটিও রয়েছে। বর্তমানে রাস্তাটি ৬ফিট। এলাকাবাসীর আবদারের প্রেক্ষিতে জনস্বার্থে রাস্তাটি ৬ ফিট থেকে ১০ ফিট করাসহ অন্যান্য রাস্তাগুলির জন্য ১কোটি ২২লাখ টাকার টেন্ডার দিয়েছে সিটি কর্পোরেশন। আমি ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর মাকসুদা মোজাফ্ফর গত ৬ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) সকালে রাস্তাটি নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করি। এসময় সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়াসহ আর্ধশতাধিক এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন। সিটি কর্পোরেশনের টেন্ডার অনুযায়ী জনস্বার্থে রাস্তা প্রশস্থ করণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। জোর করে বসত বাড়ী ভেঙ্গে রাস্তা করার জন্য কানিজ ফাতেফা, আমাকে জড়িয়ে মোস্তফা ও সালামের বিরুদ্ধে জিডি করা ষড়যন্ত্র মূলক। কারণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ সরেজমিন পরিদর্শন করেই রাস্তার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বিধায় টেন্ডার দিয়েছে। এখানে আমার ব্যক্তিগত কোন স্বার্থ নেই যে আমি জোর করে কারো বাড়ী ভেঙ্গে রাস্তা করার জন্য হুমকি ধমকি প্রদান করবো। জনস্বার্থে সিটি কর্পোরেশন রাস্তা করছে। জনস্বার্থে তা অব্যাহত থাকবে। ষড়যন্ত্র করে কেহ উন্নয়ন কাজে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারবেনা।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো: রফিকুল ইসলাম জানায়, আমাকে এ সংক্রান্ত জিডি তদন্তের জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম