Sat, 15 Dec, 2018
 
logo
 

মনোনয়ন প্রত্যাশি বিএনপি নেতাদের অধিকাংশই ঘর ছাড়া!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে সবার প্রতি সমান সুযোগ তৈরি করার আহ্বান জানিয়েছিলেন সিইসি। কিন্তু সেই আহ্বানের বাস্তবায়ন এখনো দেখতে পারছে না নারায়ণগঞ্জ বিএনপি।

তবে তৃণমূলের দাবি, যেহেতু দলীয় সরকারের অধীনে এবং সংসদ বহাল রেখে নির্বাচনটি হচ্ছে, সেহেতু তফসিলের পর মন্ত্রী ও সাংসদদের কার্যবিধি ঠিক করাও ইসির কর্তব্য।

জানা গেছে, মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি সাখওয়াত কারাগারে থেকেও মনোনয়ন সংগ্রহ করছেন। একই ভাবে মনোনয়ন সংগ্রহ করবেন জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি। অন্যদিকে মামলা এবং গ্রেফতারের হতে এড়িয়ে থাকার জন্য বিএনপির অন্যান্য প্রার্থীরা কর্মীদের দিয়ে মনোনয়ন সংগ্রহ করছেন। গাঁ ঢাকা দেওয়া নেতারাও গোপনীয়তা রক্ষা রেখে মনোনয়ন সংগ্রহ করছেন। নির্বাচনে অংশগ্রহণের সবার রয়েছে আগ্রহ। কেউ কেউ নির্বাচন করতে পুরোপুরি প্রস্তুত। কিন্তু তারপরেও অনেকের ফোনে যোগাযোগ করলে অপর প্রান্ত থেকে জানা যায়, তিনি এখন নেই আবার অনেকের ফোন নাম্বারের সংযোগ বিচ্ছিন্ন দেখায়।

এই বিষয়ে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, দেখুন আওয়ামীলীগ বা মহাজোটের শরীক দলগুলো যেভাবে নির্বাচনী কার্যক্রম চালাচ্ছে, তার মধ্যে অনেকগুলো আছে নির্বাচনী নীতিমালার বাহিরের কার্যক্রম। কিন্তু তাদেরকে আজ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী গ্রেপ্তার করছে না। আজকে আমরা তাদের মতো করে নির্বাচনী কার্যক্রম করতে নামি, দেখবেন নির্বাচনী নীতিমালা মেনে কাজ করলেও আমাদের অনেক নেতা কর্মীদেরকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাবে। এখনও আমাদের অনেকে কারাগারে রয়েছেন, কেউ মামলা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করছেন। তাহলে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডটা আমরা পাচ্ছি কোথায়?

নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের সভাপতি শহিদুল ইসলাম টিটু বলেন, দেখুন আওয়ামীলীগসহ অন্যান্য দলগুলো যেভাবে নির্বাচন করার সুযোগ সুবিধা পাচ্ছে, আমরা তা পাচ্ছি না। আমরা ভোগ করছি পুলিশের হয়রানি ও গ্রেপ্তার। আমরা অন্যদের মতো নির্বাচনী কার্যক্রম পূর্বের থেকেই করতে পারিনি। নির্বাচন কমিশন আমাদেরকে কোন সুযোগ দেয় নাই। আমাদেরকে সরকার নানা ভাবে পেরেশান করে রেখেছিল। তারপরেও আমরা দলের ডাকে মনোনয়ন ক্রয় করেছি এবং আমরাও ইনশাল্লাহ অত্যন্ত সাহসিকতা মনে নিয়ে সবার মতো করে নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু করবো।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সভাপতি মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বলেন, দেখুন আমাদের মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড যদি নির্বাচন কমিশনার না সৃষ্টি করতে পারেন। তাহলে আমাদের নির্বাচন বয়কট করার সম্ভাবনা আছে। এই আগাম ম্যাসেজটি তিনি শুধু শুধু দেন নাই। আপনি দেখুন কোথাও কোন সমান সুযোগ আমাদেরকে দেওয়া হচ্ছে না। সরকার দল এবং অন্যান্যরা তাদের পৃষ্ঠপোসকতায় লালিত হওয়া দলগুলো কোথাও বাধা পাচ্ছেন না নির্বাচনী কার্যক্রম করায়। আমরা শুরু থেকে বাধার সম্মুখিন হয়েছি। তাই আমাদের অনেকেই বাদ্য হয়ে গাঁ ঢাকা দিয়েও চেষ্টা করছেন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম