Fri, 16 Nov, 2018
 
logo
 

তারেক ইস্যুতে নামেনি বিএনপি, সারাদেশে নামলেও না.গঞ্জে ভয়!

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: রোববার (২১ অক্টোবর) ঢাকাসহ সারাদেশে কালো পতাকা মিছিল করেছে বিএনপি। তবে নারায়ণগঞ্জে পালিত হয়নি কর্মসূচী। এ নিয়ে বিএনপির তৃণমূলে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাজার প্রতিবাদে রোববার সারাদেশে বিএনপি কালো পতাকা মিছিল কর্মসূচি পালন করে। কর্মসূচী পালন করতে গিয়ে রাজশাহী, বরিশাল, খুলনা, রংপুর, সুনামগঞ্জ, পিরোজপুর, নাটোরসহ বেশ কিছু জায়গায় পুলিশের বাধায় পন্ড হয়ে যায় কর্মসূচি। বিভিন্ন স্থানে আটক হয়েছেন দলটির নেতাকর্মীরা। এদিকে দলের গুরুত্বপূর্ণ এ কর্মসূচীতেও রাজপথে দেখা মেলেনি নারায়ণগঞ্জ বিএনপির। জেলা ও মহানগরের পদধারী নেতা থেকে শুরু করে অঙ্গ সংগঠনের কেউ নামেনি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্য। এনিয়ে তৃণমূলে দেখা দিয়েছে ক্ষোভ।


অনেকেই বলেছেন, মামলা ও পুলিশের ভয়ে মুলত মাঠে নামেনি নারায়ণগঞ্জ বিএনপি। সারাদেশে হামলা, মামলা ভয়ভীতি উপেক্ষা করে রোববার বিএনপি কালো পতাকা নিয়ে মাঠে নামলেও নারায়ণগঞ্জ কর্মসূচী শুন্য থাকায় হতাশা ব্যক্ত করেছে তৃনমুল। তারা বলছে, গায়েবী মামলা শুধু নারায়ণগঞ্জে না, সারাদেশেই হয়েছে, হচ্ছে। তাই বলে রাজপথ ছেড়ে দেয়ার কি যুক্তি আছে?

 

জানা গেছে, গত ২ মাসে নারায়ণগঞ্জের ৭টি থানায় বিএনপি ও অংগ সংগঠনের নেতা-কর্মীদের নামে প্রায় অর্ধশত মামলা হয়েছে। নাশকতা ও বিস্ফোরক আইনে দায়েরকৃত এসব মামলায় শীর্ষ নেতারা জামিন নিলেও অনেক নেতা-কর্মী এখনো আদালতের বারান্দায় দিন গুনছে। এদিকে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্য ফ্রন্ট গঠনের পর বিএনপিতে কিছুটা চাঙ্গাভাব লক্ষ্য করা গেলেও নারায়ণগঞ্জে এর প্রতিফলন খুব একটা দেখা যায়নি। কেননা যারা শহরভিত্তিক রাজনীতি করেন তাদের মনোনয়নের কেন্দ্রবিন্দু হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসন। ঐক্য ফ্রন্ট হওয়ায় এ আসনে মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনায় এগিয়ে আছেন ঐক্য ফ্রন্ট গঠছনে মুখ্য ভুমিকা পালনকারী নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক এমপি এস এম আকরাম। আর এ কারনেই সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হতাশ। তাই মাঠে ময়দানে নামার সাহস দেখাচ্ছেন না তারা।

এব্যাপারে রাজপথে থাকা নেতাদের অন্যতম মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি এড. শাখাওয়াত হোসেন খানকে লাইভ নারায়ণগঞ্জের পক্ষ খেকে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, দলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক আছে ওনাদের জিজ্ঞেস করেন। আমি কোর্টের ভেতরে আছি।

 

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, বর্তমান যে রাজনৈতিক পরিস্থিতি তাতে নারায়ণগঞ্জে রাজপথে নামার মতো কোন পরিস্থিতি নেই। একের পর এক গায়েবী মামলায় জর্জরিত নেতা-কর্মীরা এই মুহুর্তে রাজপথে নেমে নতুন করে আর কোন মামলা থেতে চাইছেনা। তবে কেন্দ্রীয় নির্দেশে সরকার পতনের চুড়ান্ত আন্দোলনে নামতে সবাই প্রস্তুত আছে। শুধু একটি নির্দেশের অপেক্ষা মাত্র।

 

এদিকে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির অধিকাংশ শীর্ষ নেতা রাজপথে না নামার পেছনে মামলাকেই মুখ্য হিসেবে সামনে এনেছেন। তারা বলেছেন, যারা রাজপথে নামবে তাদের প্রত্যেকের নামেই একাধিক মামলা এবং ওয়ারেন্ট রয়েছে। সরকার চাচ্ছে বিএনপিকে জেলে রেখে নির্বাচন করতে। একারণেই দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিচ্ছেনা। তারেক রহমানকে সাজা দিয়েছে। নেতা-কর্মীদের জেলে পুড়ে নির্বাচন করতে চায় সরকার। তাই আমরা সতর্কতা অবলম্বন করছি মাত্র। সময় হলেই রাজপথে গনজোয়ার তুলবে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম