Mon, 22 Oct, 2018
 
logo
 

নাশকতার অভিযোগে ৪ থানায় ৫৬১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতার প্রস্তুতির অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের পৃথক ৪টি মামলায় ১২১ জন বিএনপি নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ্য করে ৫৬১ জনের নামে মামলা করেছে পুলিশ। এ মামলয় ১৩ বিএনপির নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) সকালে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জ, সোনারগাঁ ও বন্দরে মামলা ৪টি করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, সিদ্ধিরগঞ্জের মাদানী নগরের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে শাহাদাত হোসেন (২৬), মধ্য সানারপাড়ের ইদ্রিস আলীর ছেলে মমিন (৪০) এবং মধ্য সানারপাড় এলাকার আঃ লতিফের ছেলে রুবেল(৩০)। বন্দরের গ্রেপ্তারকৃতরা হলো বন্দর থানা যুবদলের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান দুলাল (৪৮), বন্দর থানা যুবদলের সভাপতি আমির হোসেন (৪৩) ও হরিপুর এলাকার আব্দুল করিম মিয়ার ছেলে সানাউল্লাহ (৫২)। এছাড়া সোনারগাঁয়ের এনামুল হক রবিন, নুরনবী মাষ্টার ও ইসমাইল।

মামলা গুলোর এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর ও সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনকে মৃত্যুদন্ড ও খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমানকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করা রায়কে কেন্দ্র করে বুধবার দুপুরে বিএনপি ও জামায়াত জোটের নেতারা গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করার যড়যন্ত্র করে জেলার বিভিন্ন স্থানে ককটেল বিস্ফোরন ঘটনায়।

আমাদের সিদ্ধিরগঞ্জ থানা সংবাদদাতা জানান, বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের ৫৭ জনের নাম এবং অজ্ঞাত আরো ২০০ জনের নামে একটি নাশকতার মামলা দায়ের করেছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ ফয়সাল আলম। এঘটনায় আটক দেখানো হয়েছে ৩ জনকে। এছাড়া গিয়াস উদ্দিন আহাম্মদ(৬০), ইকবাল হোসেন (৪২), ফজলুল হক (৫০), গোলজার খান (৪০), মোঃ জসিম (৩৫), কানা আনার ওরফে বোমা আনোয়ার (৩৫), ইমাম হোসেন বাদল (৩৫), আকরাম (৫২), পান্না (৫৫), সালাউদ্দিন ওরফে চাইল সালাউদ্দিন (৫৪), পল্টু কর্মকার (৪০), ডাঃ মুসা (৪৫), আহম্মদ লালা (৪৫), দেলোয়ার হোসেন খোকন (৪০), সাগর (২৫), আসলাম মন্ডল (৪৭), মামুন ওরফে বিদ্যুৎ মামুন (৩০), নাজিম পারভেজ অন্তু (২৫), সাকিল (৩০), মোশারফ (৩৫), পিন্টু মিয়া (৪০), মোঃ আকবর আলী (৪৫), রওশন চেয়ারম্যান, তাজুল ইসলাম (৪০), আইয়ুব আল (৪৫)ী, হাসান পারভেজ (৩৫), আব্দুল্লাহ আল মামুন ওরফে মিটার মামুন (৩৭), হাজী জসীম উদ্দিন (৫২), আল মামুন ওরফে বাগ মামুন (৪৫), আহসান উল্লাহ (৫৮), মোস্তফা মুন্সি (৫০), আনোয়ার হোসেন (৪১), জালাল উদ্দিন (৪৪), সালাউদ্দিন ওরফে রবিন হুড (৪২), নুরে আলম (৪৩), নুর হোসেন (৩৮), খায়রুল (৩৯), দেলোয়ার (৫৪), আঃ মান্নান (৩৮), মোজাম্মেল (৪২), নুর উদ্দিন মেম্বার (৫৫), আবুল কালাম (৪৮), সাহাবুদ্দিন (৪২), রুবেল (২৮), আক্তার (২৮), মশিউর রহমান মশু (৩৫), স্বপন মন্ডল (৩৫), হাজী নজরুল ইসলাম ওরফে পান্না (৪৫), হুমায়ুন (৩৪), বায়জিদ হাসান (৩০), আঃ খালেক টিপু, গাজী নুরে আলম (৪২), মনির (৪০) ও জিএম সাদরিল (৩৫) প্রমুখ।

ফতুল্লা সংবাদদাতা জানান, ফতুল্লা থানা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের দেড় শতাধিক নেতাকর্মী বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। এঘটনায় আটক করা হয়েছে ৪ জনকে। আটককৃতরা হলেন রাসেল (২২), আনোয়ার (৫৫), হাবিব শেখ (৪০), জয়নাল আবেদীন (৪৫)।

পুলিশের অভিযোগ করা হয়েছে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায় ঘোষণার প্রতিবাদে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের ১৪০ থেকে ১৫০জন অস্ত্র ও বিস্ফোরক নিয়ে অস্থিতিশীল ও নাশকতা করার লক্ষ্যে বিক্ষোভ মিছিল করে ককটেল বিস্ফোরন ঘটিয়ে রাস্তায় যানবাহন ভাংচুর করে।

অন্যদিকে সোনারগাঁ সংবাদদাতা জানান, সোনারগাঁয়ে ককটেল বিস্ফোরনের ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে ৪৮ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে এসআই তহিদ উল্লাহ। মামলায় যুবল নেতা এনামুল হক রবিনকে প্রধান আসামী করে ৪৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৪০/৫০ নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়েছে।

এছাড়া বন্দর সংবাদদাতা জানান, নাশকতার প্রস্তুতির অভিযোগে ১৬ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেছে পুলিশ। মামলায় অজ্ঞাত আরো ৩০ থেকে ৪০ জনকে আসামী করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো বন্দর থানা যুবদলের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান দুলাল (৪৮), বন্দর থানা যুবদলের সভাপতি আমির হোসেন (৪৩) ও হরিপুর এলাকার আব্দুল করিম মিয়ার ছেলে সানাউল্লাহ (৫২)। এর মধ্যে বন্দর থানা যুবদলের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান দুলাল বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আতাউর রহমান মুকুলের ভাই।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম