Thu, 19 Jul, 2018
 
logo
 

জনগনের অধিকার আদায়ের কথা বলাও এখন বড় অপরাধ: এড. আবুল কালাম

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ এড. আবুল কালাম বলেন, এই সরকারের অধিনে দেশের জনগনের অধিকার আদায়ের জন্য কথা বলাও এখন বড় অপরাধে পরিনত হয়েছে। এই সত্যের পথে লড়াই করতে গিয়ে আজ জাকির হোসেন মিলনের মত নেতাদের অকালে প্রাণ হাড়াতে হচ্ছে।

আমাদের উপর যতই জুলুম নির্যাতন নিপীড়ণ করুন না কেন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত ও মানুষের অধিকার আদায় না করে আমরা রাজপথ থেকে পিছপা হবো না। ছাত্রদল নেতা জাকির হোসেন মিলনের হত্যা কান্ডের বিচার সহ দলের নেতাকর্মীদের উপর নিযার্তনের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে কালো পতাকা বিক্ষোভ সমাবেশ করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি।


রোববার (১৮ মার্চ) বিকেল ৩ টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংলগ্ন এলাকায় কালো ব্যাচএ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। এ কর্মসূচীতে উপস্থিত নেতাকর্মীরা কালো ব্যাচ পরিধান করেন।


এ সময় তিনি আরও বলেন, এখন কেউ অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলেই সরকার তাকে হয় গুম, খুন, মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। তারা এখন আইনী ব্যবস্থাকে পুরো নিয়ন্ত্রনে এনে নিজেদের ইচ্ছে মত রায় করাছে। যার ফলে দলের নেতাকর্মীদেরকে গ্রেফতার করে রিমান্ডের নামে পুলিশি হেফাজতে নির্মম ভাবে হত্যা করছে। কিন্তু দেশ বাসী এর সুবিচার পাচ্ছে না। অনতি বিলম্বে আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সহ সকল আটককৃত নেতাদের মুক্তি সহ জাকির হত্যার বিচার দাবী করছি। সেই সাথে এই হত্যা কান্ডে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবী জানাছি।

জনগনের অধিকার আদায়ের কথা বলাও এখন বড় অপরাধ: এড. আবুল কালাম
মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, মানুষের অধিকার আদায়ে রাজপথে থাকার অপরাধে জাকির হোসেন মিলন এই নির্মম হত্যা কান্ডের শিকার হয়েছে। শুধু তাই নয় গুম, খুন করে মানুষের ভোটাধিকার, মৌলিক অধিকার হরন করেছে এই অবৈধ সরকার। আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির সাথে গনতন্ত্র, বাক-স্বাধীনতা, মানুষের মৌলিক অধিকার ফিরিয়ে আনতে হবে। সেই জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে থাকতে হবে নতুবা মিলনের মত বিএনপির নেতাকর্মীদের এই অবৈধ সরকারের হাতে প্রাণ হাড়াতে হবে।
এ সময় প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা জনগনের রক্ষক ও সম্পদ, কোন দল বা ব্যক্তির নয়। আমি আপনাদের কাছে আহবান করবো আইনের সুশাসন প্রতিষ্ঠা করার জন্য মানুষের পক্ষে কাজ করুন। সেই সাথে জাকির হত্যার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করুন।
মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ এড. আবুল কালাম এর সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সঞ্চালনায় এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, এড. জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু।
এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি ফখরুল ইসলাম মজনু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আওলাদ হোসেন, বিএনপি নেতা এড. আনিছুর রহমান মোল্লা, সোলেইমান, নজরুল ইসলাম সরদার, জাহাঙ্গীর মিয়াজী, মাহমুদুল হাসান মাসুম, জাহাঙ্গীর মিয়াজী, আরিফ আহম্মেদ গোগা, শওকত হোসেন লিটন, ফেদৌসুর রহমান, হারুন শেখ, হাফিজুর রহমান, আব্দুর রহমান, মহানগর যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক সরকার আলম, যুবদল নেতা নুর আলম, বরকত উল্লাহ, নাজমুল হক রানা, সেলিম, মোস্তাফিজুর রহমান পাবেল, জেলা স্বেচ্ছা সেবক দলের যুগ্ম-আহবায়ক এড. আনোয়ার প্রধান, মহানগর শ্রমিক দলের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক মনির মল্লিক, সদস্য সচিব আলী আজগর, মহানগর স্বেচ্ছা সেবক দল নেতা মাকিদ মোস্তাকিম শিপলু, দুলাল হোসেন, আব্দুর রশিদ হাওলাদার, মোঃ রাব্বী, বন্দরথানা স্বেচ্ছা সেবক দল নেতা মোস্তাক আহম্মেদ  মহানগর ছাত্রদল নেতা মোস্তাকুর রহমান, আরাফাত চৌধুরী, মির্জা কামালউদ্দিন জনি, মেহেদি হাসান খান, শফিকুল ইসলাম, দর্পন প্রধান, আব্দুল হাসিব, পাপ্পু(বড়), হামিদ, ডলার, সৌরভ আহম্মদে, আলতাফ, আনোয়ার, জুয়েল, অভি,ি মঠু, আব্দুর রশিদ, নাজমুল, পাপ্পু(ছোট), সায়েম, বাপ্পী, খোকন, রাব্বি, মিন্টু, জিসান, রাকিব, নাসিম, মাসুদ, নুর, গিপু ইমরান, সেলিম মিয়া, কামরুল হাসান খোকন, ফারুক, দুলাল, মতিউর রহমান সহ বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ণ বিএনপি এবং এর সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম