Wed, 13 Dec, 2017
 
logo
 

সিদ্ধিরগঞ্জে বিএনপি নেতার বাড়ী পরিদর্শন করলেন তৈমুর আলম ও মামুন মাহমুদ

সিদ্ধিরগঞ্জ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: সিদ্ধিরগঞ্জের ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেনের বাড়ীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে একই ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি

হোসেন সরদারের ছেলে সন্ত্রাসী সিব্বির বাহিনীর হামলায় ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা এ্যাড. তৈমুর আলম খন্দকার ও জেলা বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ সহ নেতাকর্মীরা । শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টায় নাসিক ৬নং ওয়ার্ডের গোদনাইল এসও রোডের কামাল হোসেনের বাড়ীতে আসেন এ্যাড. তৈমুর আলম খন্দকার। অপরদিকে বিকাল সাড়ে ৪টায় নেতাকর্মী নিয়ে আসেন অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। এসময় তারা কামাল হোসেনের পরিবারকে শান্তনা দেন।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, থানা বিএনপি নেতা শাহ আলম হীরা, রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ, ৩নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি তৈয়ব হোসেন, ৯নং ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি বাবুল প্রধান, সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম দেওয়ান, থানা ছাত্রদলের যুগ্ন সম্পাদক জাকির হোসেন, ৬নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা শামছুদ্দিন শেখ, বিএনপি নেতা রৌশন, কামাল ভুঁইয়া, ৬নং ওয়ার্ড যুবদলের সাধারন সম্পাদক আক্তার হোসেন, সহ-সভাপতি রুবেল হোসেন, ৯নং ওয়ার্ড যুবদল সভাপতি রাকিবুল দেওয়ান, ৩নং ওয়ার্ড যুবদল সভাপতি সোহেল, যুবদল নেতা মামুন প্রধান, আসলাম, শহিদুল্লাহ, ওসমান, মোসলেউদ্দিন, মাসুদ, রাসেল ও মাসুম প্রধান প্রমূখ।
উল্লেখ্য, গত ১২ নভেম্বর রবিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় তার ওয়ার্ড বিএনপির সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেন ঢাকায় বিএনপির সমাবেশে যাওয়ার জন্য বাড়ী থেকে বের হয়ে যায়। সে বাড়ী থেকে বের হওয়ার আধা ঘন্টা পর নাসিক ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হোসেন সরদারের ছেলে শিব্বির ও ফকির চাঁনের নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল দেশীয় অস্ত্র লাঠি-সোটা নিয়ে বাড়ীতে অতর্কিত হামলা চলায়। হামলাকারীরা বসতঘরসহ ৭টি কক্ষ ব্যাপক ভাংচুর করে। এসময় ঘরে থাকা ৫ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ৫হাজার টাকা লুটপাট করে। এ সন্ত্রাসী হামলায় আনুমানিক ৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনাটি স্থানীয় ভাবে মিমাংশা করার উদ্যোগ নেন ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ মতিউর রহমান মতি। পরে গত বুধবার উভয় পক্ষকে নিয়ে মিমাংশা বৈঠক করেন কাউন্সিলর। এতে ২ দিনের মধ্যে ভাংচুর করা বাড়ি প্রতিপক্ষকে মেরামত করে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। কিন্তু গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত কামালের বাড়ি মেরামতের  কোন উদ্যোগ নেয়নি প্রতিপক্ষরা।  এ ঘটনায়এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।  

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম