Fri, 17 Nov, 2017
 
logo
 

‘প্রধানমন্ত্রী ভুলে গেছে ৭৫ থেকে ৭৯ সালের কথা’

স্টাফ কসেপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘প্রধানমন্ত্রী’ আপনি বলেছেন, আমি সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্মেছিলাম। তার কথা ঠিক। কিন্তু তিনি হয়তো জানেন না, ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত আমার বাবা জেলে ছিলেন। বড় ভাই নাসিম ওসমানকে ধরে নিয়ে গিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীরা।

ওই ৬ বছর আমি এক বেলা খেলে আরেক বেলা খেতে পারি নি। কিন্তু তখন খুব প্রতাবশালী ছাত্র নেতা ছিলাম। আমাদের কথায় তখন ৫ মিনিটে ২০ থেকে ২৫ হাজার ছাত্র রাস্তায় নামতো। এই কলেজে ১৯ জন রাজাকারকে প্রবেশ করতে দেই নি। জিয়াউর রহমানকে এই নারায়ণগঞ্জ দিয়ে যাওয়ার সময় আটকে দিয়েছিলাম। কিন্তু আমার পকেটে কোন টাকা ছিলনা।
প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখা এক তরুণ শিক্ষার্থীর প্রশ্নের জবাবে এভাবেই উত্তর দেন সাংসদ একেএম শামীম ওসমান মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে।
প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখা এক তরুণ শিক্ষার্থী মাহফুজ। নবীন বরণ অনুষ্ঠানে সাংসদ শামীম ওসমানের বক্তব্য চলাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের ডেকে কথা বলার সুযোগ দেন। সে সুযোগে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখা এক তরুণ শিক্ষার্থী মাহফুজ শামীম ওসমানের উদ্দেশ্যে বলেন. আপনি সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্মে ছিলেন। তাই অনেক কিছুই অনেক সহজে করতে পেরেছেন। কিন্তু আমরা মধ্যেবিত্ত ঘরের সন্তান, আমরা অনেক কিছুই করতে পারি না।
ওই শিক্ষার্থীর কথার পরিপ্রেক্ষিতে তখন শামীম ওসমান আরো বলেন, আমি যখন ইন্টারমিডিয়েটের ছাত্র। আমার সাথের সকলে ফরম ফিলআপ করে ফেলেছে। আমি তখনও করতে পারিনি। কিন্তু আমার সৌভাগ্য তখনকার শিক্ষকরা ২০ হাজার শিক্ষার্থীর খবর রাখতেন। আমার শ্রদ্ধেও শিক্ষক বাবু জীবন কানাই চক্রবত্তী স্যার আমাকে কলেজের রুমে ডেকে পাঠালেন। স্যার বলেছিলেন কেন আমি এখনো ফরম পুরণ করিনি।
ওই দিকে বড় ভাই সেলিম ওসমান আমার ফরম পূরণের ৯‘শ টাকা হাওলাদের জন্য ঘুওে বেড়াচ্ছেন। কিন্তু কেউ টাকা দিচ্ছিল না। তাই বড় ভাইও আসছিল না। আমি স্যারকে বলেছিলাম পরে করবো। কিন্তু স্যার আমাকে তখনই সই দিতে বলেছিলেন। সেদিন যদি আমাকে স্যার ফরম পূরণ না করাতেন, তাহলে হয়তো ওই বছর আমার পরীক্ষা দেওয়া হতো না।
সাংসদ শামীম ওসমান  প্রধানমন্ত্রী হতে চাওয়া শিক্ষার্থী মাহফুজকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ওই ছোট ছেলেটা কি বলতে চেয়েছে, আমি তা বুঝতে পেরেছি। তোমাদের সকলের সমস্যা হয়তো আমি সমাধান করতে পারবো না। তারপরেও যে কোন সমস্যা নিয়ে এসো আমি চেষ্টা করবো সমাধান করতে। এর বিনিময়ে তোমরা শুধু মা বাবার খেদমত করবে, তাদের কথা মতো চলবে। টাকার জন্য কারো পড়ালেখা এই কলেজে বন্ধ হবে না।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম