Sat, 18 Nov, 2017
 
logo
 

কায়সার-বিরু না কালাম, কে পাচ্ছেন আ.লীগের মনোনয়ন?

লাইভ নারায়ণগঞ্জ : একদিকে বিরু এবং মাহফুজুর রহমান কালাম একই সাথে আছেন সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। এবারের একাদশ নির্বাচনে এই তিনজনই নারায়ণগঞ্জ (সোনারগাঁ)-৩ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী।


আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত থাকা মনোনয়ন প্রত্যাশা ওই তিনজনই তরুণ। এর মধ্যে কায়সার ছিলেন সংসদ সদস্য ছিলেন। এছাড়া তার পূর্ব পুরুষ আপদমস্তক আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে বহুকাল ধরেই সম্পৃক্ত।

স্থানীয় রাজনীতিতে কালাম ও বিরুর থেকেও বেশ প্রভাব রাখেন কায়সার। স্থানীয়দের মতে এবারও আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পাবেন কায়সারই। হাস্যজ্জ্বোল তরুণ এই রাজনীতিক নেতাকর্মীদের সাথে অকপটে মিশে যেতে পারেন। কাঁধে কাঁধ মিলে চলতে পারেন। যার কারণে তৃণমূলের কাছে তার গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে অন্য সবার থেকেও বেশি।

সূত্র বলছে, নির্বাচনকে সামনে রেখে সোনারগাঁয়ের প্রতিটি ইউনিয়ণ গ্রাম চষে বেড়াচ্ছেন মনোনয়ন প্রত্যাশী ওই তিন রাজনীতিক। বিভিন্ন স্থানে উঠান বৈঠকেও মিলিত হচ্ছেন তারা। একই সাথে তৃণমূল নেতাকর্মীদেরও নিজেদের কাছে টানার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এলাকাবাসীর মতে, আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত অন্যদের তুলনায় এলাকায় অধিক সময় দিচ্ছেন। প্রায় প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও নেতাকর্মীদের নিয়ে ঘরো সভা সমাবেশে মিলিত হচ্ছেন। স্থানীয় ভোটারদের সাথে তিনি কথা বলে যাচ্ছেন।

অতীতে কিছুটা মান অভিমান থাকলেও ভোটার ও দলীয় নেতাকর্মীরা কায়সারকেই মেনে নিচ্ছে। এবং আগামী নির্বাচনে তাকেই আওয়ামী লীগের যোগ্য প্রার্থী বলে মনে করছেন। তারাও চাইছে কায়সারকেই যেন আগামী নির্বাচনে দল থেকে মনোনয়ন দিক।

তাদের মতে, রাজনীতিতে একটা সময় অপরিপক্ব থাকলেও এখন অত্যন্ত দক্ষ একজন রাজনীতিক হয়ে উঠেছেন কায়সার। এছাড়াও আগের বার সংসদ সদস্য থাকার কারণে জনপ্রতিনিধি দায়িত্ব সম্পর্কে তিনি বেশ ভালো করেই জানেন। ফলে এবার তিনি নির্বাচিত হলে স্থানীয়রা বেশ উপকৃতই হবেন। ফলে, এলাকার উন্নয়ণের স্বার্থে কায়সারকেই মনোনয়ন দেয়া উচিত বলে মনে করছেন অনেকেই।

অপরদিকে বিরু ও কালাম প্রসঙ্গে অনেকেই বলছেন, তারা রাজনীতি অনেক দিন ধরে করলেও মাঠের রাজনীতিতে এখনও পরিপক্ব নন। এছাড়াও তৃণমূল ও ভোটারদের কাছেও তাদের গ্রহণযোগ্যতা এখনও সেভাবে গড়ে উঠেনি। সংসদ সদস্য হিসেবে তাদের সেভাবে কেউই চিন্তা করছে না। তাছাড়া ভোটের মাঠেও তাদের প্রভাব সেভাবে নেই।

এদিকে রাজনীতিতে শেষ বলে কথা নেই। অনেক সময় অনেক কিছুই ভাবনার সাথে মিলেও না। কখনো কখনো যা ভাবা হয়, তা বাস্তবতায় ভিন্নতা দেখা যায়। ফলে এখনই কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারছে না কে পাবে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন?

তবে তৃণমূল ও স্থানীয় ভোটারদের ধারণা কালাম ও বিরুর থেকে অনেকটা ভালো অবস্থানেই আছেন কায়সার। তাই তারা ধরে নিয়েছেন আগামী নির্বাচনে তিনিই পাচ্ছেন দলীয় মনোনয়ন। তবে শেষতক কী হয়, তা জানতে আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে সবাইকে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম