Fri, 22 Sep, 2017
 
logo
 

না.গঞ্জ বিএনপির সাথে কেন্দ্রীয় নেতাদের জরুরী বৈঠক : ‘মাইনাস’ নয়, যুক্ত হচ্ছে নতুন নেতৃত্ব

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ : জেলা ও মহানগর কমিটি গঠন পূর্বক নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।


বুধবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে বিএনপির পল্টস্থ দলীয় কার্যলয়ে মহাসচিবের কক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতৃবৃন্দসহ নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন বলে কেন্দ্র ও স্থানীয় বিএনপি সূত্রে জানা যায়।

সূত্র জানায়, কমিটি গঠন নিয়ে বেশ ক’দিন ধরেই জেলা ও মহানগর বিএনপির মধ্যে শুরু হয় অন্তর্দ্বন্দ্ব। মূলত নেতাকর্মীদের মনোভাব বোঝার জন্যই মহাসচিব এ বৈঠক ডাকেন। আর সেটি হুট করেই ফোনের মাধ্যমে ডাকা হয়।

সূত্র জানায়, আগের দিন (১০ জানুয়ারি) কেন্দ্রীয় বিএনপির কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম ফজলুল হক নারায়ণগঞ্জ বিএনপি নেতাদের পৃথকভাবে ফোন করে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসতে বলেন। তবে, তিনি যাকেই ফোন করেছেন তাকেই সতর্ক করে বলেছেন অন্য কেউ যেন না জানে। একা আসবেন।

এমন করে প্রায় ১০/১২ জন নেতাকে ডেকে পাঠান। কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যাওয়ার পর নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতারা একজন অপরজনকে দেখে কিছুটা অবাক হন। তবে, কেন্দ্রী নেতৃবৃন্দ ব্যাপারটিকে ভিন্নভাবে কাটিয়ে দেন।

সূত্র জানায়, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমূর আলম খন্দকার, সাধারণ সম্পদক কাজী মনিরুজ্জামান, সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাড. আবুল কালাম, গিয়াসউদ্দিন, শাহ আলম, নগর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পদক এটিএম কামাল, সিটি নির্বাচনে পরাজিত মেয়র প্রার্থী অ্যাড. শাখাওয়াত হোসেন খান, বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকুল, হাজী নুরুদ্দিন, আবু আল ইউসুফ খান টিপু প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় বিএনপি সূত্রে জানায়, মহাসচিবের সাথে দীর্ঘ দুই ঘন্টার মত নারায়ণগঞ্জ বিএনপি নেতাদের সাথে আলোচনা হয়। আলোচনাটি মূলত জেলা ও মহানগর কমিটি গঠন পূর্বক আলোচনা। কেন্দ্রীয় বিএনপি চাচ্ছে, সকলের সমন্বয়ে সুন্দর ও শক্তিশালী কমিটি গঠন সম্পাদন করতে। এছাড়াও সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পরাজয়ের কারণ কি? তা নিয়েও আলোচনা হয়।

বৈঠকে কেন্দ্রীয় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আব্দুস সালাম, একেএম ফজলুল হক উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতৃবৃন্দকে নিয়ে মধ্যাহ্নভোজ করেন।

এদিকে একটি সূত্র জানায়, যে কোন মুহূর্তে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর কমিটি ঘোষণা করা হতে পারে। তবে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি নেতাদের কেউ কেউ সম্মেলনের কথা বললেও কেন্দ্র সেদিকে যেতে রাজি হয় নি। তারা সকলের সমন্বয়ে সুন্দর ও শক্তিশালী দু’টি কমিটি গঠনের পক্ষে মত দেন। এ ক্ষেত্রে নতুন ও পুরাতন নেতাদের সমন্বয়েই কেন্দ্রী বিএনপি কমিটি গঠনের পক্ষে।

অপর একটি সূত্র বলছে, নতুনদেরকেই প্রাধান্য দিয়ে কমিটি গঠন করা হবে। এরমধ্যে সাখাওয়াত, টিপু এতদিন বিদ্রোহী কমিটির নেতা হিসেবে থাকলেও এবার তাদের মূল ধারায় ফিরিয়ে আনা হবে। এরমধ্যে সাখাওয়াতকে মহানগর কমিটি সভাপতি করার ব্যাপারে দল মোটামুটি নিশ্চিত।

এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. তৈমূর আলম খন্দকার কমিটির ব্যাপারে কোন কথা হয় নি দাবী করে বলেন, কমিটি হলে কাউন্সিলের মাধ্যমে হবে। আমরা মহাসচিবের সাথে এমনিই সাক্ষাৎ করেছি। সভাটি অনির্ধারিত নয়। এটি পূর্ব নির্ধারিত ছিল।

কি কি বিষয় কথা হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বিস্তার কিছু বলতে চান নি। তবে তিনি বলেছেন, নারায়ণগঞ্জের সার্বিক ব্যাপার নিয়েই আলোচনা হয়েছে।

নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, মহাসচিবের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছি। এটি কমিটি গঠন পূর্বক কোন সভা নয়। সিটি নির্বাচন প্রসঙ্গে কিছু কথাবার্তা আর সৌজন্যতা হয়েছে। আমরা দুই ঘণ্টার মত ছিলাম।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম ২৪