Thu, 13 Dec, 2018
 
logo
 

বাজারে নেই ইলিশ, কঠোর অবস্থানে মৎস্য অধিদপ্তর

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: দেশজুড়ে ৭ অক্টোবর হতে শুরু হয়েছে মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান। সেই সুবাদে নারায়ণগঞ্জের সকল মাছের বাজারে দেখা মিলছে না ইলিশের। রোববার (১৪ অক্টোবর) ৫নং ঘাটের পাইকারি মাছের বাজারে সরেজমিনে গিয়ে দেয়া যায় এই চিত্র।
বাজারে ঘুরে ঘুরে ছোট-বড় সকল মাছ দেখা গেলেও কোথাও ইলিশ পাওয়া যায় নি।


প্রধান প্রজনন মৌসুমে ‘মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান’ বাস্তবায়নসংক্রান্ত জাতীয় টাস্কফোর্সের সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার ৭ অক্টোবর থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন প্রজনন ক্ষেত্রের ৭ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকায় সব ধরনের মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ এবং ক্রয়-বিক্রয় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সরকার।


নারায়ণগঞ্জে মৎস্য অধিদপ্তরের সহায়তায় অভিযান বাস্তবায়নে ব্যাপক তৎপরতা বহাল আছে। এতে করে ইলিশ পরিবহন বা ইলিশ সংরক্ষণের সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। বিভিন্ন মাছের বাজার বা বন্দর গুলোতে চলছে জড়িতদের গ্রেপ্তার বা জরিমানা।
তাই জেলার কালিবাজার, দ্বিগু বাবুর বাজার, ৫নং ঘাটের পাইকারি মাছের বাজার হতে শুরু করে সকল স্থানে ঘুরে দেখা যায় বাজারে সব রকমের ছোটো বড় মাছের দেখা মিলছে কিন্তু ইলিশের দেখা নেই।


ব্যাবসায়ীদের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তারা বলেন, এই সময়টাকে আমরাও সরকারের সঙ্গে একাত্বতা গ্রহণ করছি। কারণ এই সময়ে মা ইলিশ ডিম পাড়ার উদ্দেশ্যে নদীতে আসে। সেই সময়ে মাছ ধরলে ইলিশের বংশবিস্তারে বাধা আসবে ও এক সময় এই ইলিশ নদী হতে বিলুপ্ত হয়ে যাবে। তাই আমরাও মনে করি দেশের ভালোর জন্য এবং আমাদের ভালোর জন্য হলেও ইলিশ ধরা বন্ধ রাখা উচিৎ। আবার কিছু অসাধু ব্যাবসায়ীরা এই সময়টাতে সুযোগ খুঁজতে থাকলেও তারা অনেকটাই সোচ্চার অবস্থানে আছে। তবে নদীতে কিছু মাঝি ইলিশ ধরে নদীর পারে থেকেই অল্প দামে বিক্রি করে বলে আমরা শুনেছি।


ব্যবসায়ীদেরকে পূর্বের চাইতে এতটা সচেতন হয়ে যাওয়ার কারণ জানতে চাওয়ায় তারা বলেন, সচেতনতা আমাদের মন থেকে আসে, তবে শুনেছি সাদা পোশাকের অনেক পুলিশ বাজারে ঘুরছে। তাই আরো সচেতন হয়েছি আমরা।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম