Wed, 19 Sep, 2018
 
logo
 

বঙ্গবন্ধুর চেতনা জাগ্রত রাখার চেষ্টায় সেলিম ওসমান


লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ভবিষ্যত প্রজন্মের মাঝে বঙ্গবন্ধুর চেতনা বোধ সদা জাগ্রত রাখতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সদস্যদের নামে নামকরন করে নানা স্থাপনা নির্মাণ করে চলেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান।

ইতোমধ্যে মর্গ্যান গালর্স স্কুল এন্ড কলেজের একজন ছাত্রীর দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে ১৪ আগস্ট ‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা’ নামে নির্মাণাধীন নতুন ভবনটির নামকরনের ঘোষণা সহ ভবনটি নির্মানে ৩ কোটি টাকা অনুদান প্রদান করেন। সেই ধারাবাহিকতায় একদিন পর ১৫ আগস্ট বুধবার সকালে পুরান সৈয়দপুর বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়ে নির্মিত ভবনটি ‘বঙ্গবন্ধু ভবন’ নামকরন করার পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়াম নামে নতুন একটি অডিটরিয়াম নির্মানের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। সেই সাথে ভবিষ্যত প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের জন্য বঙ্গবন্ধু পরিবারের বাকি সদস্যদের নামেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা অন্যান্য স্থাপনা নির্মানের আশা প্রকাশ করেছেন এমপি সেলিম ওসমান।

বঙ্গবন্ধুর চেতনা জাগ্রত রাখার চেষ্টায় সেলিম ওসমান

বুধবার ১৫ আগস্ট সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের সার্বিক সহযোগীতায় সকাল ১১টায় গোগনগর ইউনিয়নে সৈয়দপুর বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়, দুপুর ১২টায় আলীরটেক ইউনিয়নের কুড়েরপাড় এলাকার শেখ রাসেল উচ্চ বিদ্যালয় এবং বিকেল ৩টায় ধামগগড় ইউনিয়নের দশদোনা হালুয়াপাড়া এলাকায় শেখ জামাল উচ্চ বিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা ও দোয়ায় তিনি এসব কথা বলেছেন। এর আগে ১৪ আগস্ট শহরের শীতলক্ষ্যা এলাকায় মহানগর শ্রমিক লীগের উদ্যোগে শাহাদাৎ বার্ষিকীতে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। যার সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন এমপি সেলিম ওসমান।

বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে আলোচনা শেষে এমপি সেলিম ওসমান তিনটি স্কুলে শিক্ষার্থীদের কাছে বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার দায়িত্ব নিতে পারবেন কিনা জানতে স্কুল গুলোর প্রতিটি শিক্ষার্থী দুই হাত তুলে চিৎকার করে এমপি সেলিম ওসমানকে জানিয়ে দেন হ্যা আমরা প্রস্তুত হচ্ছি বাংলাদেশের দায়িত্ব নেওয়ার জন্য।

সেলিম ওসমান সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর তার নির্বাচনী এলাকাধীন ৭টি ইউনিয়নে সম্পূর্ন ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৭টি নতুন স্কুল ভবন নির্মান করেছেন। যার তিনটিই ‘বঙ্গবন্ধু’ ‘শেখ জামাল’ ও ‘শেখ রাসেল’ নামে নামকরন করা হয়েছে।

যার মধ্যে গোগনগর ইউনিয়ন এলাকায় পুরান সৈয়দপুর বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয় এবং আলীরটেক ইউনিয়ন এলাকায় শেখ রাসেল উচ্চ বিদ্যালয় দুটি নির্মান কাজ সম্পন্ন হলেও আনুষ্ঠিক উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে। যেটি আগামী সেপ্টেম্বর মাসের যে কোন সময় উদ্বোধন করা হবে বলে তাঁর বক্তব্যে জানিয়েছেন এমপি সেলিম ওসমান। অন্যদিকে ধামগড় ইউনিয়ন এলাকায় শেখ জামাল উচ্চ বিদ্যালয়টি ইতোমধ্যে উদ্বোধন করা হয়েছে। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের শেখ জামাল উচ্চ বিদ্যালয়টি সহ সেলিম ওসমানের ব্যক্তিগত অর্থায়নে নির্মিত আরো দুটি স্কুল নাগিনা জোহা উচ্চ বিদ্যালয় এবং শামসুজ্জোহা এমবি ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন। ওবায়দুল কাদেরে হাতে উদ্বোধন হওয়া স্কুল ৩টিতে কয়েক হাজার শিক্ষার্র্থীরা সম্পূর্ন বিনা খরচে লেখাপড়া করছে।

বুধবার আলোচনা সভায় এমপি সেলিম ওসমান স্কুল গুলোর পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দদের উদ্দেশ্যে শিক্ষার্থীদের কোচিং বাধ্যতা মূলক না করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছেন। যে সকল শিক্ষার্থীর যে বিষয়ে দুর্বলতা রয়েছে অথবা যারা শারীরিক অসুস্থ্যতা সহ বিভিন্ন কারনে পিছিয়ে পড়েছে তাদেরকে বিশেষ পরিচর্যার মাধ্যমে ভাল ফলাফল অর্জনের করার মত করে প্রস্তুত করার কথা বলেছেন। তবে এর জন্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোন প্রকার ফি না নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে কোচিং করানোর জন্য শিক্ষকদের যে সম্মানী প্রদান করা হবে প্রয়োজনে স্কুল পরিচালনা কমিটি তাঁর কাছে প্রস্তাবনা দিলে তিনি সেটা জোগাড় করার ব্যবস্থা করে দিবেন বলেও জানান। যাতে করে শিক্ষার্থী অমনযোগী হয়ে না পড়ে এবং ফলাফল খারাপ না করে তার জন্য কোন শিক্ষার্থী টেস্ট পরীক্ষায় ফেল করতে তাকে জেএসসি বা এসএসসি পরীক্ষা দিতে না পাঠাতে কঠোর ভাবে নির্দেশ দেন। যদি কোন শিক্ষক এ কাজটি করে তাহলে স্কুল পরিচালনা কমিটি ওই শিক্ষকের ব্যাপারে ব্যবস্থা নিবে আর যদি স্কুল পরিচালনা কমিটির কোন কর্মকর্তা এ কাজটি করে তাহলে সেই স্কুলের পরিচালনা কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নতুন কমিটি গঠন করা হবে বলেও তিনি জানান।

আলোচনা সভা গুলোতে এমপি সেলিম ওসমান ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয় পার্টি আহবায়ক আবুল জাহের, বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এ রশিদ, মহানগর জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব আকরাম আলী শাহীন, বন্দর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা পিন্টু বেপারী, বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহীন মন্ডল, ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান, আওয়ামীলীগ নেতা আলী আকবর, জসিম উদ্দিন, গোগনগর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি মোক্তার হোসেন, গোগনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নওশেদ আলী, আলীরটেক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান মতি, ধামগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ, মদনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, মুছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেন, বন্দর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন সহ সকল ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিরা।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম