Wed, 19 Sep, 2018
 
logo
 

প্রধানমন্ত্রী যাকে মনোনীত করবেন আমরা তাঁর পক্ষেই কাজ কবরো : শুক্কুর মাহমুদ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী করতে এবং পেতে ও উন্নয়নের মাধ্যমে প্রাচ্যেরডান্ডি নারায়ণগঞ্জ ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রী যাকেই মনোনয়ন দিবেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর শ্রমিকলীগ তার পক্ষেই কাজ করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ।

তিনি বলেছেন, আমার ভাতিজা সেলিম ওসমান জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য হলেও সে মনে প্রানে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বহন করে। পাশাপাশি আমার মতো সেও নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ন করে পরিবর্তন ঘটাতে চায়। ইতোমধ্যেই শীতলক্ষ্যা সেতুর কাজ চলছে, নবীগঞ্জ দিয়ে ফেরী চালু হয়েছে। এছাড়াও অনেক উন্নয়ন কাজ সেলিম ওসমানের মাধ্যমে হচ্ছে ভবিষ্যতেও হবে। এ সময় তাঁর পাশেই মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সেলিম ওসমান।

মঙ্গলবার ১৪ আগস্ট দুপুর ২টায় সিটি কর্পোরেশনের ১৮নং ওয়ার্ডের শীতক্ষ্যা এলাকায় এমপি সেলিম ওসমানের সার্বিক সহযোগীতা ও মহানগর শ্রমিকলীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা ও দোয়ার পূর্বে প্রধান আলোচক হিসেবে শ্রমিক লীগ সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ এসব কথা বলেন।

শুক্কুর মাহমুদ আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নটাই বড় কথা। তাই আগামী নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাকে মনোনীত করবেন আমরা তার পক্ষেই কাজ করবো। পাশাপাশি শীতলক্ষ্যা নদীর উপর নির্মানাধীন সেতুটি প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের নামে নামকরনের জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি।

মহানগর শ্রমিকলীগের সভাপতি কাজিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে এমপি সেলিম ওসমান বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ২১টি বছর আমরা মুক্তিযোদ্ধারা জয় বাংলা বলতে পারি নাই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমাদের সেই অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছেন। তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে বিশ্বে দরবারে মাথা উচু করে দাড়িয়েছে। বাংলাদেশ এখন আর তলি বিহীন ঝুড়ি নয়। আপনাদের সিদ্ধান্ত নিবে হবে আগামীতে কি আবারো রাজাকারের গাড়িতে পতাকা উঠবে নাকি বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে শক্তি ক্ষমতায় আসবে। আগামীতে আমি এমপি হতে পারি বা না পারি সেটা বড় কথা নয়। বড় কথা হচ্ছে আগামীতে শেখ হাসিনাকে আবারো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হতে হবে। তাহলে তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশে আগামী ৫ বছরে ২০ বছর এগিয়ে যাবে। আর যদি শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হতে না পারে তাহলে বাংলাদেশে আগামী ৫ বছরে আরো ১৫ বছর পিছিয়ে যাবে। তাই আপনাদের সবাইকে আজকে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকীতে আপনাদেরকে শোককে শক্তিতে পরিনত করতে হবে এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে আবারো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আবুল জাহের, আওয়ামীলীগ নেতা জসিম উদ্দিন, মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন। আলোচনা সভাটি উপস্থাপনা করেন মহানগর শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান মুন্না।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম