Tue, 13 Nov, 2018
 
logo
 

সচিবকে প্রাণনাশের হুমকি, চেয়ারম্যান এহসানের বিরুদ্ধে জিডি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: অপহরণ আর হত্যার হুমকি! তাও প্রকাশ্যে। আর এমন অভিযোগ বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন আহম্মেদের বিরুদ্ধে। আর এবিষয়ে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় সাধারণ ডায়েরিও করা হয়েছে।

শনিবার (১১ আগস্ট) সোনারগাঁ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) সূত্রে জানা যায়, বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক এক সচিবকে অপহরণ করে হত্যার হুমকির অভিযোগ উঠেছে চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন আহম্মেদের বিরুদ্ধে। ওই সচিব বর্তমানে সোনারগাঁ উপজেলার সন্মানদি ইউপির সচিব মোহাম্মদ ইউসুফ।

চাকরির দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার দ্বন্দ্ব নিয়ে দায়েরকৃত সাধারণ ডায়েরিতে চেয়ারম্যান এহসান ছাড়া আরও ২ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। তারা হলেন- বন্দর উপজেলার নবীগঞ্জ এলাকার জাহাঙ্গীর ও নেওয়াজ শরীফ।

জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার জালকুড়ি এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর হোসেন মাস্টারের ছেলে মোহাম্মদ ইউসুফ। তিনি সন্মানদি ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান সচিব। এর আগে তিনি বন্দর ইউপিতে সচিব হিসেবে ছিলেন।

তিনি জানান, শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সন্মানদি ইউপি থেকে ১নং বিবাদী জাহাঙ্গীর তাকে অফিস কক্ষের পেছনে ডেকে নিয়ে যায়। পরে তাদের সাথে চাকরির দায়িত্ব বুঝে দেওয়া নিয়ে তর্ক-বিতর্ক হয় মোহাম্মদ ইউসুফের। একপর্যায়ে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে মারধর করতে উদ্ধত হয়। বেশি বাড়াবাড়ি করলে এবং তাদের কথামতো না চললে অপহরণ করে প্রাণনাশ করা হবে বলে প্রকাশ্য হুমকি দেয়া হয়। এরপর থেকে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তিনি আশংকা করছেন যে কোন সময় তাকে বিবাদীরা তার মারাত্মক ক্ষতিসাধন করতে পারেন। এ জন্য তিনি জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানা পুলিশের শরনাপন্ন হয়েছেন।

এ বিষয়ে বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন আহম্মেদ লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, জিডির অভিযোগ বিষয়ে তিনি কিছুই জানি না। অভিযোগকারী মোহাম্মদ ইউসুফ একসময় আমার ইউপির সচিব ছিলেন। দায়িত্ব পালনকালে ওই সচিব স্বাক্ষর জাল করে গ্রাম পুলিশের ২ মাসের বেতনের টাকা আত্মসাত করেছেন। এ ছাড়া জন্ম নিবন্ধনের বিপুল পরিমাণ টাকা গড়মিল করেছেন ওই সচিব। এসব ছাড়া আরও অনেক বিষয়ে অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এ কারণে তাকে বন্দর ইউপি সচিব থেকে তাকে বদলি করা হয়।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম