Sat, 20 Oct, 2018
 
logo
 

প্রস্তাবিত মজুরি প্রত্যাখ্যান ও নিম্নতম মজুরি ১৬ হাজার টাকা ঘোষণার দাবিতে মানববন্ধন

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: মজুরি বোর্ডে মালিক ও শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধিদের প্রস্তাবনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে তা প্রত্যাখ্যান করে অবিলম্বে গার্মেন্ট শ্রমিকদের মজুরি ১৬ হাজার টাকা ঘোষণার দাবিতে 'গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র'র' উদ্যোগ মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) বিকেল ৫ টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র'র নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি এম এ শাহীন এর সভাপতিত্বে মানববন্ধনেে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রিয় কমিটির নেতা দুলাল সাহা, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র'র জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস, গার্মেন্ট টিইউসির জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, সহ-সাধারণ সম্পাদক কাজী মোতাহার হোসেন, বিসিক অঞ্চলের নেতা হারুন-অর রশিদ কাঠেরপুল অঞ্চলের নেতা মোস্তাকিম ও কাঁচপুর অঞ্চলের নেতা শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

 

মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ বলেন- গত সোমবার (১৬ জুলাই) মজুরি বোর্ডের নির্ধারিত সভায় মালিক পক্ষের প্রতিনিধি নিম্নতম মজুরি ৬ হাজার ৩৬০ টাকা আর শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধি ১২ হাজার ২০ টাকা প্রস্তাব করেছেন যা গার্মেন্ট শ্রমিক ও দেশবাসীর কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। মজুরি বোর্ডে যে প্রস্তাবনা উত্থাপিত হয়েছে তা তিব্র নিন্দার সহিত প্রত্যাখ্যান করছি। মজুরি প্রস্তাবনায় বর্তমান বাজারদর, আই এলও কনভেনশন, মুদ্রাস্ফীতি, আর্থসামাজিক অবস্থা ও শ্রমিকের জীবনমান কোন কিছু বিবেচনা করা হয়নি। বাজার দরের সাথে মজুরি প্রস্তাবনা সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। গার্মেন্ট শ্রমিকরা কোন ভাবে'ই তা মেনে নিবেনা। এই অমানবিক প্রস্তাবনা পরিবর্তন করে শ্রমিকের জীবনমান উন্নয়ন, শিল্পকে বিকাশিত করা ও জাতীয় অর্থনীতিক স্বার্থে নিম্নতম মোট মজুরি ১৬ হাজার টাকা নির্ধারণ করতে হবে।

প্রস্তাবিত মজুরি প্রত্যাখ্যান ও নিম্নতম মজুরি ১৬ হাজার টাকা ঘোষণার দাবিতে মানববন্ধন

নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করে বলেন- মজুরি বোর্ডে গার্মেন্ট শ্রমিকদের প্রকৃত প্রতিনিধি না থাকার কারণে শ্রমিকের স্বার্থ বিবেচনায় নেওয়া হচ্ছে না। যাকে
বোর্ডে শ্রমিক প্রতিনিধি করা হয়েছে উনি ইতিমধ্যে বলেছেন যে, তিনি শুধু শ্রমিক সংগঠনের সাথে'ই যুক্ত তা নয় এক'ই সাথে রাজনৈতিক দলেরও লোক।

তিনি ক্ষমতাসীন দলের স্বার্থ সংরক্ষণ করতে গিয়ে প্রকারন্তরে শ্রমিকদের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে মালিকদের স্বার্থ রক্ষা করছেন। মালিক ও সরকার মিলে যেনতেন একটা মজুরি ঘোষণা দিয়ে পার পেয়ে যাওয়ার ষড়যন্ত্র লিপ্ত হয়েছে। মালিকরা সেই নীল নকশা বাস্তবায়নের অপচেষ্টা চালিয়েছে। নেতৃবৃন্দ বলেন- মালিকদের কোন ষড়যন্ত্র'ই মজুরি বৃদ্ধির আন্দোলন দমন করতে পারবে না অবিলম্বে তারা গার্মেন্ট শ্রমিকদের প্রাণের দাবী নিম্নতম মূল মজুরি ১০ হাজার টাকা ও ভাড়ি-ভাড়া, যাতায়াত ভাতা, চিকিৎসা ভাতাসহ মোট মজুরি ১৬ হাজার টাকা ঘোষণার দাবী জানান ।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম