Wed, 20 Jun, 2018
 
logo
 

শেষ কথাও যার শেষ না: এরশাদে ভীত এমপি সেলিম-খোকা


লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘রাজনীতিতে শেষকথা বলে কিছু নেই’ একথা বার বার প্রমাণ হয়েছে আমাদের দেশে। তেমনি শেষের পরও যে শেষ নেই সেটা প্রমান করেছেন বাংলাদেশের রাজনীতির আলোচিত পুরুষ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধাণমন্ত্রীর বিশেষ দূত এইচ এম এরশাদ। সেই এরশাদের মুখে বর্তমান সরকারের সমালোচনা এবং আগামী নির্বাচনে তার অবস্থান কি হবে তা নিয়ে রীতিমতো ভয়ে আছেন নারায়ণগঞ্জের জাতীয় পার্টির দুই এমপি।

জানা গেছে, সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন সভা সমাবেশে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের কঠোর সমালোচনা করে চলেছেন প্রধাণমন্ত্রীর বিশেষ দূত, সংসদে বিরোধী দলের দলীয় চেয়ারম্যান এবং মহাজোট হিসেবে মন্ত্রীত্ব পাওয়া জাতীয পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ। বলছেন জাতীয় পার্টি একক নির্বাচন করে ক্ষমতায় যাবে। আর কারও লেজুরবৃত্তি করবেনা। মন্ত্রীসভা থেকে তার দলের মন্ত্রীরা যেকোন মুহুর্তে পদত্যাগ করবে। শুধু তাই নয়, জাতীয় পার্টি তথা এরশাদকে রাজনীতির ‘ট্রাম্পকার্ড’ হিসেবে অখ্যায়িত করেছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। বর্তমান জরিপ অনুসারে তারা বলছেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে জাতীয় পর্টির সমর্থন ছাড়া আওয়ামীলীগ বিএনপি কেউই ক্ষমতায় যেতে পারবেনা। আর এতেই গদগদ হয়ে উঠেছেন জাপা চেয়ারম্যান এরশাদ।

এদিকে এরশাদের মুখে সরকারের সমালোচনা এবং ক্ষমতার জন্য যেকোন মুহুর্তে পল্টি দিতে অভ্যস্ত এরশাদকে নিয়ে ভয়ের মধ্যে রয়েছেন নারায়ণগঞ্জের জাতীয় পার্টির দুই এমপি সেলিম ওসমান ও লিয়াকত হোসেন খোকা। কেননা জাতীয় পার্টির এমপি হলেও দুজনেই আওয়ামীলীগ সরকারের বন্ধনাই করে থাকেন বেশী। তাদের পাশে সুবিধাভোগী আওয়ামীলীগ নেতাদেরও দেখা যায়। এনিয়ে সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সমালোচনাও হয়েছে। জাতীয় পার্টির এমপি হয়েও সেলিম ওসমান এবং লিয়াকত হোসেন খোকা আওয়ামীলীগের প্রশংসায় পঞ্চমুখ থাকেন। এ সংক্রান্ত বেশ কিছু পোষ্টার ফেষ্টুনও ফেসবুকে দেয়া হয়েছে যেখানে এমপিদের মাথার উপরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের ছবির পরিবর্তে আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতাদের ছবি স্থান পেয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, জাতীয় পার্টির এমপি হয়েও মূলত আওয়ামীলীগের নাম ভাঙ্গিয়েই এলাকায় বেশী প্রভাব বিস্তার করে থাকেন এই দুই এমপি। যার কারনে দলের তৃনমূল নেতা-কর্মীরা তাদের পাশে নেই।
শুধুমাত্র আওয়ামীলীগের উপর ভরসা করেই তারা ফের এমপি হওয়ার সপ্ন দেখেন। তাই পার্টি চেয়ারম্যান এরশাদের সাম্প্রতিক সময়ের বক্তব্যে তারা ভীত। যদি এরশাদ সত্যি সত্যি একক নির্বাচন করেন, এবং নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহন করে তাহলে তাদের জামানত থাকবে কিনা তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন কেউ কেউ। বরং এরশাদ আওয়ামীলীগের সাথে থাকলেই তাদের লাভ। আর তাই জাতীয় রাজনীতির মাষ্টার পল্টিবাজ এরশাদকে নিয়ে ভীত নারায়ণগঞ্জে জাতীয পার্টির দুই এমপি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম