Tue, 23 Oct, 2018
 
logo
 

ফতুল্লায় দু’গ্রুপের সংর্ঘষ: আহত ১০

ফতুল্লায় ট্রাক স্ট্যান্ডে প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মাঝে ব্যাপক ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ওই সংঘর্ষে  দুই গ্রুপের অন্তত ১০ জন আহত হয় । সংঘর্ষ চলাকালে দুইটি মোটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগসহ কয়েকটি ট্রাক ভাঙচুর করা হয়।  

সোমবার (১৪ মে) রাত ৮ টায়  উপজেলার  বটতলা রেললাইন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।


আহতের মধ্যে গুররুতর অবস্থায় আছে জামাল খান (৬০) ও হৃদয় (২৮)।  তারা শহরের খানপুরে নারায়ণগঞ্জ ৩শ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।  এছাড়া মুরাদ, আবু কালাম,  ইসরাফিল, মিছির আলী, মাইনুদ্দিনসহ অনেকেই  আহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রেলওয়ের জমিতে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা ট্রাক স্ট্যান্ড ঘিরে চাঁদাবাজীকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় ফয়সাল গ্রুপের সঙ্গে আবু কালাম, শরিফ, পারুল, ইসরাফিলের বিরোধ চলে আসছে।  ঘটনার সূত্রপাত বেলা ১১টার দিকে অটো রিকশা চালক ও ট্রাক চালকের মধ্যে। এই দুই বাহনের চালকের মধ্যে সাইড দেয়া নিয়ে তর্ক বিতর্ক হলে পাশের চা দোকানী এসে এই তর্কে যুক্ত হয়। পরে ট্রাক চালক চা দোকানীর উপর ক্ষিপ্ত হলে চা দোকানী ট্রাক চালককে চড় মারলে উভয়ের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। ওই সময় এ ঘটনা আশপাশের লোক এসে মিটমাট করে দেয়।

এ ঘটনার সূত্র ধরে রাতে বটতলা  ট্রাক স্ট্যান্ডে চা দোকানির পক্ষ হয়ে স্থানীয় ফয়সাল ও সুজনের নেতৃত্বে ৩০ থেকে ৩৫ জন ব্যক্তি লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায় । এসময় ট্রাক চালকেরাও পাল্টা হামলা চালায় তাদের উপর। এতে করে দুই পক্ষের মধ্যে ঘন্টা ব্যাপী  ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ব্যাপক সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় রাস্তায় থাকা দুইটি মোটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ করা হয়। এছাড়াও পাগলা শাখা ট্রাক চালক শ্রমিক ইউনিয়ণের অন্তুর্ভূক্ত খাজা গরীবে নেওয়াজ মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের অফিস ভাঙচুর করা হয়।

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ  শাহ মোহাম্মদ মঞ্জুর কাদের বলেন,  তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করেই এই ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার সূত্রপাত। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে। পরিস্থিতি এখন শান্ত  রয়েছে। এ ঘটনায় কাউকে আটক করা যায়নি। এছাড়া কেউ কোনো অভিযোগ করতে আসেনি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম