Fri, 17 Nov, 2017
 
logo
 

রূপগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আ’লীগ সভাপতিসহ আহত-১৫


রূপগঞ্জ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ:  রূপগঞ্জে বালু ভরাটকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় এক পক্ষ আরেক পক্ষের ড্রেজার ও বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর লুটপাট চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সংঘর্ষে ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতিসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় সমসের নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের পুর্বগ্রাম শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে এলাকায় ঘটে এ ঘটনা। এদিকে, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতির উপর হামলার প্রতিবাদে স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ স্থানীয়রা বিক্ষোভ মিছিল করেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, পুর্বগ্রাম এলাকায় সিটি গ্রুপের জমিতে বালু ভরাটের কাজ পান কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জায়েদ আলী ও ৫নং ওয়ার্ড সভাপতি শ্রী রবি রায়। একটি ড্রেজারের মাধ্যমে তারা বালু ভরাট কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন। গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে পুর্বগ্রাম এলাকার শরিফ মিয়া, লুৎফর রহমান মুন্না, সমশেরসহ তাদের লোকজন অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ড্রেজার বন্ধ করে দেয়। এসময় প্রতিবাদ করতে গেলে শ্রী রবি রায়কে পিটিয়ে আহত করে। এক পর্যায়ে শরীফসহ তার লোকজন রবি রায়ের লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। খবর পেয়ে রবি রায়ের পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পাল্টা হামলা চালায়। এসময় উভয় পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় এক পক্ষ আরেক পক্ষের ড্রেজার, বাড়ি ঘরে হামলা ভাংচুর লুটপাট চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সংঘর্ষে রবি রায়, শাহিন খাঁন, স্বপন মিয়া, কবির হোসেন, রমজান আলী, সফিউল্লাহ, স্বপন হোসেনসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেনের নেতৃত্বে এক দল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এসময় পুর্বচনপাড়া এলাকার হাসমত আলীর ছেলে সমসেরকে গ্রেফতার করা হয়।
এদিকে, বুধবার দুপুরে ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতির উপর হামলার প্রতিবাদে স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ স্থানীয়রা বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। মিছিলে অংশ গ্রহন করেছেন, জায়েদ আলী, মহি উদ্দিন, ফারুক মিয়া, আলমগীর হোসেন, সফিকুর রহমান, নাজমা বেগম, আমির হোসেন, আব্দুল খালেক, মনা, সিরাজুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।
এ ব্যপারে কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জায়েদ আলী অভিযোগ করে বলেন, মাদক বিক্রেতা ও শীর্ষ সন্ত্রাসী শরীফ, সমশেরসহ তাদের লোকজন জায়েদ আলীর কাছ থেকে বালুর ব্যবসা বাবদ ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। দাবিকৃত চাঁদার টাকা না দেয়ায় ড্রেজার বন্ধ করে তার লোকজনের উপর হামলা চালায় চাঁদাবাজরা। এছাড়া শরীফ ও সমসেরসহ তাদের লোকজন এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, মাদক ব্যবসা থেকে শুরু করে অপরাধমুলক কর্মকান্ড করে আসছে।
অপর দিকে, শরীফ মিয়া পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, গত দশ বছর আগে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার জন্য শাহাবুদ্দিন নামে এক দালাল তার কাছ থেকে ১১ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে এক দিন ওই দালালকে জায়েদ আলীর অফিসে পাওয়া যায়। তখন তাকে আটক করলে জায়েদ আলী নিজ জিম্মায় ছাড়িয়ে নেন। আর ওই টাকার চাইতে গেলেই জায়েদ আলীসহ তার লোকজন আমাদের উপর হামলা চালায়।
রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, কোন মাদক ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসীসহ অপরাধীর ছাড় নেই। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে। 

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম