Sat, 18 Nov, 2017
 
logo
 

না.গঞ্জে সারোয়ার-তামিম গ্রুপের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: না.গঞ্জে জামা’তুল মুজাহিদীনের ৩ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১।

সোমবার (২১ আগস্ট) রাতে অভিযান চালিয়ে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার লাঙ্গলবন্দ ও রূপগঞ্জের তারাবো এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, চাকু, জিহাদি বই ও লিফলেট উদ্ধার করা হয়।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন ঢাকার কেরানীগঞ্জের আব্দুর রহমান (৩২), ময়মনসিংহ জেলার সৈয়দ রায়হানুল আহসান (৩২) ও মোহাম্মদ ইমাম হোসেন (২৭) এর বাড়ি চাঁদপুরে।

মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী নগর এলাকায় র‌্যাব-১১ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১১ সিও লে. কর্নেল কামরুল হাসান এসব তথ্য জানান।

কামরুল হাসান জানান, সোমবার রাতে খবর আসে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে জেএমবির কিছু সদস্য নাশকতার পরিকল্পনার জন্য গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছে। খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি দল অভিযান চালায়। কিন্তু র‌্যাব ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই জঙ্গিরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। পরে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বন্দরের লাঙ্গলবন্দ বাসস্ট্যান্ড থেকে দুইজন এবং রূপগঞ্জের তারাবো বাসস্ট্যান্ড থেকে একজনকে গ্রেপ্তার করে।

র‌্যাব অধিনায়ক আরও জানান, সৈয়দ রায়হানুল আহসান ওরফে নাফিস চাকরির পাশাপাশি মূল জেএমবি ও পরবর্তীতে জেএমবির সারোয়ার-তামিম গ্রুপের দাওয়াতি, আইটি ও গবেষণা শাখার একজন সক্রিয় সদস্য।

আব্দুর রহমান ওরফে রুবেল ওরফে সুফিয়ান সারোয়ার-তামিম গ্রুপে যোগদান করে দাওয়াতি শাখা থেকে সামরিক শাখায় আত্মপ্রকাশ করে। সে র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার শুরা সদস্য ইমরান আহমেদের জন্য অস্ত্র সংগ্রহ করার কাজ হাতে নিয়েছিল। মোহাম্মদ ইমাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে আবু উমামা আল বাহিনী, সে হুজির পক্ষে কিছুদিন দাওয়াতি কাজ করেছে। তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাস দমন আইনে দুটি মামলা রয়েছে। পরবর্তীতে সারোয়ার-তামিম গ্রুপে যোগদান করে এবং জঙ্গি হামলা সংক্রান্ত বিভিন্ন কলাকৌশল ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করে সদস্যদের মাঝে প্রচারের কাজ করতো।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপ-অধিনায়ক মেজর আশিক বিল্লাহ ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মশিউর রহমান।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম