Wed, 26 Jul, 2017
 
logo
 

বন্দরে সাদা ষ্ট্যাম্প ও চেকের পাতাসহ চড়া সুদে টাকা নিয়ে বিপাকে শিল্পী বেগম

বন্দর করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বন্দরের খোছেরছড়া এলাকায় সাদা ষ্ট্যাম্প ও চেক বইয়ের পাতায় স্বাক্ষর পূর্বক উচ্চ সুদে টাকা নিয়ে বিপাকে পড়েছে একই এলাকার শিল্পী বেগম। স্থানীয় মাহমুদা বেগমসহ ৩/৪ জন

মহিলার সামনে সুদসহ ২ লাখ টাকা পরিশোধ করলেও উলে¬খিত কাগজ ফেরত দিচ্ছে না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শিল্পী বেগম বাদী হয়ে বন্দর থানায় ২ টি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সত্যতা পায় বলে পুলিশের সহকারী পরিদর্শক শামীম মিয়া জানান। এ ঘটনায় এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।
জানা গেছে, বন্দরের ধামগড় ইউনিয়নের খোছেরছড়া এলাকার আল আমিনের স্ত্রী আলেয়া বেগম একজন চিহ্নিত সুদের ব্যবসায়ী। বিগত ১ বছর পূর্বে একই এলাকার দিন মজুর দ্বীন ইসলামের স্ত্রী শিল্পী বেগম সুদে ১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা নেয়। ওই সময় সুদী আলেয়া বেগম সাদা ষ্ট্যাম্প ও চেক বইয়ের পাতায় স্বাক্ষর রেখে টাকা দেয়। ৩ মাস পূর্বে স্থানীয় মাহমুদা বেগমসহ ৩/৪ জনের উপস্থিতিতে সুদেরসহ মোট ২ লাখ টাকা পরিশোধ করলেও রহস্যজনক কারনে ষ্ট্যাম্প ও চেক ফেরত না দিয়ে উল্টো হুমকি দিচ্ছে। এ ঘটনায় ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে বিচার শালিসী হয়। পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদের উপস্থিতিতে গত ডিসেম্বর মাসে বিচার হয়। আলেয়া বেগম, আকলিমা ও মজিরুন বেগমসহ তার আতœীয় স্বজনরা প্রতিনিয়ত শিল্পী বেগমকে হুমকী দিচ্ছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন। এ বিষয়ে চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদের মোবাইল নং ০১৭১২১০২৫২০ নাম্বারে ফোন দিলেও তাকে পাওয়া যায়নি।
ইউপি সদস্য মোতালেব মিয়া বলেন, আলেয়া সুদী মহিলা। তার সম্পর্কে কিছু বলার নেই। খারাপ প্রকৃতির মহিলা আলেয়া বেগম। সুদখোর এ সমস্ত মহিলাদের এলাকা হতে বিতারিত করার প্রয়োজন। এ ঘটনায় পরিষদের বিচার হয়েছিল  কিন্তু আলেয়া মানেনি। পরিষদকে অবমাননা করেছে।
বন্দর থানার সহকারী পুলিশ পরিদর্শক শামীম মিয়া জানান, গত ১ লা জানুয়ারির অভিযোগের প্রক্ষিতে তদন্ত করে দেখলাম আলেয়া একজন সুদী ও খারাপ প্রকৃতির মহিলা। ৮ জানুয়ারির অভিযোগে তদন্ত পূর্বক আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম ২৪