Thu, 20 Sep, 2018
 
logo
 

রাত পোহালেই মানুষের ঢল নামবে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: যান্ত্রিক শহরে বছরের উৎসব-পার্বণ এখন বিশেষ দিনকেন্দ্রিক। তবে আধুনিকতার ছোঁয়ায় অভ্যস্ত হয়ে উঠলেও বছরের অন্য সব উৎসব ও ঈদকে এক কাতারে রাখতে চান না তরুণ-তরুণীরা। ঈদের আনন্দকে তারা ছড়িয়ে দিতে চান সবার মধ্যে। তাই যৌবনের উদ্দামতায় উৎসব-আনন্দকে প্রাণের উচ্ছলতায় বেঁধে ফেলার টানের সুর ওঠে তরুণ কণ্ঠে।

জীবনকে নতুন রূপে রাঙানোর উৎসব ঈদ। আর সেই ঈদ উপলক্ষে এখন প্রস্তুত শিল্পনগরীর বিনোদন কেন্দ্রগুলো।

ঈদ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৪ জুন) থেকেই ফাঁকা হতে শুরু করেছে লোকজনে ঠাসা নারায়ণগঞ্জের ছোট্ট শহরটি। চিরচেনা প্রাণচাঞ্চল্য অনুপস্থিত। ঈদ-উল-ফিতরের টানা ছুটিতে বন্ধ থাকবে অফিস-আদালত। তাই এবার তিনদিন আগে থেকেই নারায়ণগঞ্জ জুড়ে শুরু হয়েছে ঈদের ছুটির আমেজ। আগাম ছুটিতে বাড়ি চলে যাওয়ায় অনেকটা পাল্টে গেছে কোলাহলে ভরা নারায়ণগঞ্জের চেহারা।

ঈদ-উল-ফিতরের সর্ববৃহৎ এ উৎসবে বসবাসরত এবং ঢাকা থেকে ঈদ উদযাপন করতে আশা মানুষের জন্য এখন প্রস্তুত নারায়ণগঞ্জের বিনোদন কেন্দ্রগুলো। কেবল পশ্চিমাকাশে এক ফালি বাঁকা চাঁদ ওঠার অপেক্ষা। তারপর রাত পোহালেই মানুষের ঢল নামবে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে।

ঈদ উৎসবকে মাথায় রেখে এরইমধ্যে প্রযুক্তির ছোঁয়ায় আধুনিক সাজে সেজেছে নগরীর নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল পার্ক, এডভেঞ্চার ল্যান্ড ও চৌরুঙ্গীর পার্ক। আশা করা হচ্ছে নতুনভাবে ঢেলে সাজানো এ বিনোদন কেন্দ্রটি এবারও শিল্পনগরীর সর্বোচ্চ বিনোদনের খোরাক জোগাবে।

এছাড়া ‘বাংলার তাজমল’, ‘সোনারগাঁও জাদুঘর’ (বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন) ও পানাম নগরীও রূপ নিয়েছে এক অন্যরকম রূপ।

ফাউন্ডেশনের পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপ জানান, গতবছরের তুলনায় এবার ফাউন্ডেশনকে সাজানো হবে ভিন্ন সাজে। করা হবে বর্ণিল আলোকসজ্জা। ঈদের ছুটিতে জাদুঘরে আগত হাজার হাজার দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। জাদুঘরে আসার প্রবেশ পথে যানজট নিরসনে পুলিশ প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। জাদুঘরের বিভিন্ন অংশে চলছে ধোয়া মোছার কাজ।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম