Sat, 15 Dec, 2018
 
logo
 

৬‘শ ভোক্তার সাথে প্রতারণা দিয়ে পথচলা শুরু কাশীপুরের হাজী রেস্তোরার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নতুন দোকান, ব্যাপক প্রচারণা। তার উপর স্বল্প মূল্যে বিক্রী হবে খাবার। তাই ভালো খাওয়ার আশায় ৩‘শ টাকা মূল্যের ৬টি কূপন কিনেছে কাশিপুর এলাকার শারহজাহান।

একই অবস্থা ওই এলাকার নাসিমা বেগমেরও। ছেলে লিমন পরিবারের জন্য কূপন কেনায় দুপুরের খাবার এক সাথে খাওয়া দাওয়া করবেন, এমনটাই আশা করে ছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত খেতে পারেননি তারা।

৬‘শ ভোক্তার সাথে প্রতারণা দিয়ে পথচলা শুরু কাশীপুরের হাজী রেস্তোরার

শাহজাহান ও নাসিমা বেগমের দাবি, ৩ ‘শ টাকা অনুযায়ী খাবারের পরিমাণ কম। রোস্ট ফুল মোরগ দেওয়ার কথা থাকলেও দেওয়া হয়েছে মুরগি। এছাড়া অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে তৈরি করা হয়েছে খাবার, হয়নি সিদ্ধ। পাশাপাশি দুপুর সোয়া ১২টায় খাবার দেওয়ার কথা থাকলেও সন্ধ্যা ৭টার পরেও খাবার দেওয়া শেষ হয়নি। তাই খাবার খেতে পারেনি।

শুধু শাহজাহান কিংবা নাসিমা বেগম নয়, তাদের মতো প্রায় ৬‘শ ভোক্তার সাথে একই ধরণের কর্মকাণ্ড চালিয়ে প্রতারণা করেছে কাশীপুর খিল মার্টেন ভাই ভাই বেকারী সংলগ্ন হাজী রেস্তোরা কর্তৃপক্ষ।

৬‘শ ভোক্তার সাথে প্রতারণা দিয়ে পথচলা শুরু কাশীপুরের হাজী রেস্তোরার

জানা গেছে, ১৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিলো রেস্তোরাটি। তাই গত কয়েক দিন মাইকসহ বিভিন্ন প্রচারণা করে খাশিপুর খিলমার্কেট এলাকায় ৬‘শ কূপন বিক্রি করেন। প্যাকেজটিতে খাসির কাচ্চি, রোস্ট ফুল মোরগ, ডিম, মজু ছাড়াও আরো অনেক কিছু দেওয়ার কথা ছিলো।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হাজী রেস্তোরার খাবার রান্না করা হয়েছে অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে ভাই ভাই বেকারীর বেতর। খোলা মেলা পরিবেশে টুপলীর মধ্যে রাখা হয়েছে খাবার খুলো। খালি হাতেই যে যার মতো করছে প্যাকেট, পাশেই দাঁড়িয়ে দিক নির্দেশনা দিচ্ছে দোকানের মালিক হাজী নাসির। আর বাহিরে লাইনে দাঁড়িয়ে খাবার নিচ্ছে ক্রেতারা।

এবিষয়ে জানতে হাজী রেস্তোরাটির মালিক হাজী নাসির উদ্দিনের মোবাইলে রাত সাড়ে ৭টায় একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেনি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম