Sat, 20 Oct, 2018
 
logo
 

সৌন্দর্য হারিয়েছে ৩‘শ শয্যা, কাটা হয়েছে ২০ গাছ


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘ইট পাথরের শহরে সবুজের দেখা মেলে না খুব একটা। তাই একটু খানি সময় পেলেই সবুজে ঘেরা প্রকৃতিতে দেখতে বন্ধুদের নিয়ে ছুটে আসি। গাছ গুলো কেটে ফেলায় হয়তো আর বেশি দিন আসতে পারবো না।’

রোববার (১০ মে) দুপুরে লাইভ নারায়ণগঞ্জের সাথে একথা গুলো বলছিলেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা শাওন আহম্মেদ।
পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বন্ধু আসলাম বলেন, শিল্পনগরী নারায়ণগঞ্জে এসেছি আজ প্রায় ১৩ বছর হলো। এই ১৩ বছরে নিজেকে একটি জলজ্যান্ত পাথরে পরিণত করে ফেলেছি। প্রকৃতি কি জিনিস তা ঈদ আসলেই হয়তো বুঝি। বাকি সময়টার জন্য সবুজে বলতে আমি বুঝতাম এই ‘খানপুর পার্ক’ টাকেই।

 সৌন্দর্য হারিয়েছে ৩‘শ শয্যা, কাটা হয়েছে ২০ গাছ
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, খানপুরে অবস্থিত ৩‘শ শয্যা হাসপাতালে ১৪ টি বড় গাছ ও ৬ টি মাঝারি ধরনের গাছ কাটা হয়েছে। এতে সৌন্দর্য হারিয়েছে হাসপাতালের আশপাশের।
নারায়ণগঞ্জের একজন আইনজীবী বলেন, ‘সংবিধানের ১৮ (ক) তে বলা আছে সরকার বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য পরিবেশ সংরক্ষণ ও উন্নয়ন করবে। গাছ পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে। তাই গাছ কাটার সিদ্ধান্ত সংবিধানের সঙ্গে সাংর্ঘষিক।’
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলার আয়োতন মাত্র ৬৮৩.১৪ বর্গ কিলোমিটার। ছোট এই জেলার অঞ্চল ৩০৮০ হেক্টোর জমি জুড়েই শহর অবস্থিত। শহর অঞ্চলে বনভূমি রয়েছে মাত্র ৬২ হেক্টোর জমির উপর। অথচ, এত কম সংখ্যক বনভূমি থাকার পরেও বনভূমি বৃদ্ধির জন্য বিশেষ কোন উদ্যোগ নেই স্থানীয় প্রশাসনের মাঝে।
এদিকে খানপুর হাসপাতালের একজন কর্মকর্তা বলেন, স্থানীয়দের বহুদিনের দাবি ছিলো নারায়ণগঞ্জে উন্নয়ত মানের একটি সরকারি হাসপাতাল করার। সেই দাবির প্রেক্ষিতে খানপুর ৩‘শ শয্যা হাসপাতালকে ৫‘শ শয্যা হাসপাতাল থেকে উন্নতি করার জন্য ১৫ তলা নতুন মেডিক্যাল ভবন নির্মাণ করা কবে। তাই গাছ গুলোকে কাটা হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম