Wed, 20 Jun, 2018
 
logo
 

মিতুকে নিজ জিম্মায় ছেড়েছে আদালত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নাজিরা আক্তার মিতুকে সাবালক, স্বাভাবিক বিবেচনা করে নিজ জিম্মায় ছাড়েছে আদালত। সোমবার (২১ মে) দুপুর সাড়ে ১২টার সময় নারায়ণগঞ্জে অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রে অশোক কুমারের আদালতে হাজির করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। এসময় ২২ ধারায় জবানবন্দী শেষে এ নিদের্শ প্রদান করেন।

এর আগে রোববার (২০ মে) দুপুরে নাজিরা আক্তার মিতুকে ফতুল্লার সস্তাপুর থেকে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ উদ্ধার করে থানা নিয়ে যায়। সে সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা নাজিম উদ্দিনের মেয়ে এবং ভূঁইগড় রূপায়ণ টাউনের বাসিন্দা ইউসুফ মিয়ার স্ত্রী।
মিতু তাঁর জবানবন্দীতে আদালতকে জানান, ‘তাঁকে কেউ অপহরণ করেনি। সে স্বেচ্ছায় তাঁর প্রেমিক আবুল হোসেনের সাথে পালিয়ে গিয়েছেন।’
আদালতে শুনানি শেষে মিতু সাবালক, স্বাভাবিক বিবেচনায় তাঁকে তাঁর নিজ জিম্মায় ছাড়া হয়। পরে মিতু আদালত ত্যাগ করে বের হয়ে জিআরও এর কাছে আসলে ওই হৃদয়বিদার ঘটনাটি ঘটে। তাঁকে তাঁর দুই মেয়ে করুণ আর্তনাদ কোটচত্বর পরিবেশ ভারি হয়ে ওঠে। এমন দৃশ্য প্রতক্ষ্যদর্শী পুলিশ, আইনজীবি ও বিচারপ্রার্থীদের চোখেও জল এনে দেয়।
এদিকে জিআরও এর কাছে মিতুকে নিয়ে পরকীয়া প্রেমিকের পরিবার একদিকে অপরদিকে তাঁর দুই সন্তানসহ অন্য স্বজনরা। এমন পরিস্থিতে আদালত চত্বরে যখন কিছুটা জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে দায়িত্বরত পুলিশ উভয় পক্ষকে জিআরও থেকে বের করে দেন এবং মিতুকে কিছুটা নিরাপদে বাইরে বের করে দিয়ে যায়।
অপরদিকে আদালতের বাইরে মিতুকে বের করে দেয়ার পর এখানেও দুই পক্ষের টানাটানি শুরু হয়। এই পরিস্থিতিতে সে কোন দিকে যাবে নিজেও ঠিক করতে পারছিলেন না। পরে সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও নাজিরা আক্তার মিতুর বাবার কালো রঙের নোহা মাইক্রোবাসে একরকম তাঁকে তাঁর বাবার বাড়ির লোকজন জোর কেরই তুলে নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম