Mon, 23 Oct, 2017
 
logo
 
 

 
 
2017-10-22-16-12-18স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণঘঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ শহরের গণবিদ্যা নিকেতন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী উম্মে হাবিবা আক্তার শ্রাবণীকে পরীক্ষার হল থেকে মারধর করে টেনে হিচরে বের করে মারধর করার পর স্কুল মাঠে কান ধরিয়ে দাড় করিয়ে রেখে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় অভিযোগ পত্র দাখিল করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক...
 
সর্বশেষ শিরোনাম
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

 
 
 
 
 

 
শহরজুড়ে

 

রাজনীতি
 
জেলাজুড়ে

 

অর্থনীতি

বিশেষ প্রতিবেদন
 
 
 
 
 
 
 
 

শিক্ষা
 
স্বাস্থ্য
 
ক্রিড়া
 
ধর্ম
 
জনপ্রতিনিধি
 
সাক্ষাতকার
 

ক্যারিয়ার
 
বিনোদন
 
সাহিত্য
 
মন্তব্য কলাম
 
আইন-আদালত
 
লাইফ স্টাইল
 
শুভ কামনা
 
দুর্ভোগ
 
জরুরি প্রয়োজনে
 
এ্যালবাম
Previous ◁ | ▷ Next
 
মিডিয়ায় না’গঞ্জ
কোথায় কি
 
 

ক্রয়-বিক্রয়
 
ভাড়া
 
ভ্রমন
 
ইতিহাস-ঐতিহ্য
 
 
 
 
 

হাস মুরগীর রানিক্ষেত রোগের ভ্যাকসিন আবিষ্কার করলেন মিজান


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ : বাংলাদেশে পোলট্রি ব্যাবসা একটি জনপ্রিয় এবং লাভজনক ব্যাবসা । এই পোলট্রি ব্যাবসায়ের মাধ্যমে দেশে ডিম ও মাংসের চাহিদা তথা প্রাণিজ আমিষের চাহিদা মিটিয়ে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা আর্জনের একটি পথ ।


 কিন্তু মুরগী এবং পাখি পলন বা ডিম ও মাংস উৎপাদনের বড় অন্তরায় পাখির রোগবালাই বা মরক । এই মরকের মধ্যে অন্যতম হলো রানিক্ষেত । এই রোগ আক্রন্ত হলে পাখি কোন ভাবেই বাচানো সম্ভব হয়না । নামে একটি ভ্যাকসিন আছে এ রোগ আক্রান্ত হওয়ার আগে প্রোয়োগ করলে তিন মাসের জন্য নিরাপদ থাকা যায় । এই রোগ এটির আক্রান্ত হলে ঐ এলাকায় বা খামারে সব পাখি আক্রান্ত হয় এবং আক্রান্ত একটা পাখিকেও বাচানো সম্ভব হয়না । কোনভাবে যদি ভ্যাকসি দেওয়ার আগে বা ভ্যাকসিনের সময় পার হওয়ার পরে এই রোগ আক্রন্ত হয় তাহলে তখন ঐ খামারে সব পাখি মারাযাবে এবং খামারি ক্ষতিগ্রস্ত হবে ।

বর্তমানে এই সমস্যা থেকে বের হওয়ার জন্য ঢাকার এক লোক এইরোগের চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কার করেছে । তার নাম : মোঃ মিজানুর রহমান সুমন । তার এই চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কারের মাধ্যমে সাত থেকে দশদিনের মধ্যে মাত্র দশ থেকে বিশ টাকা খরচ করে এই রোগ ভাল বা সম্পুর্ন ভাল করা সম্ভব হবে । তার আর একটি আবিষ্কার পাখির গলনালী ও পঃয়নালী টিউমারের চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কার । তার এ দুইটি আবিষ্কার বিশ্বে এই প্রথম ।

তাই এই আবিষ্কারের প্রতি জনমত গড়ে তুলে আবিষ্কারটি সরকারী স্বিকৃতি পেতে সাহায্য করবেন এবং ভবিষ্যতে আবিষ্কারককে আরও কিছু আবিষ্কার করে আপনাদের এবং সারা পৃথিবীকে সেবা করার সুযোগ করে দিবেন । দেশের সুনাম বৃদ্ধি করতে সুযোগ করে দিবেন ।

 এই রোগের লক্ষন পাখির প্রজাতি ভেদে কিছুটা আলদা হতে পারে । কবুতর ও কিছু পাখির বেলায় :-(১) চুনা সমসত্ত ভাবে মিস্রিত পত্ত সবুজ মল ত্যাগ করবে এবং রোগ তিব্র হলে মল কালো ও সমসত্ত ভাবে চুনা মিস্রিত থাকবে । (২) কবুতর বমি করবে এবং কবুতরের পেটের খাবার হজম হবেনা । (৩) খাবার খাওয়া বন্ধ করে দিবে । (৪) শরীরের পালক উসকো খুসকো হয়ে থাকবে । (৫) কখনও কখনও চক্রাকারে ঘুরতে থাকবে । (৬) অনেক সময় মুখ দিয়ে শ্বাস নেবে । (৭) ঝিমুতে থাকবে । মুরগী ও কিছু পাখির বেলায় : (১) চুনা সমসত্ত ভাবে মিস্রিত পিত্ত সবুজ মল ত্যাগ করবে এবং তিব্র রোগে মল কালো হয়ে যাবে চুনা সমসত্ত ভাবে মিস্রিত থাকবে । (২) খাবার খাওয়া বন্ধ করে দিবে । (৩) পেটের খাবার হজম হবেনা । (৪) মুখ দিয়ে শ্বাস নেবে, কখনও কখনও কক কক শব্দ করবে । (৫) মাথা ঝাড়বে, মনে হবে ঠান্ডা লেগেছে । কিন্তু ঠান্ডা লাগলে স্বাস নালী বা নাক দিয়ে লালা বা পানি পড়বে এবং মাথার ফুল পুরো কালো হয়ে যাবে । কিন্তু এ রোগে অল্প কালো হবে । (৬) ডিম ওয়ারা পাখি ডিম দেয়া বন্ধ করে দিবে । (৭) কখনও কখনও চক্রাকারে ঘুরতে থাকবে । (৮) শরীরের পালক উসকো খুসকো হয়ে থাকবে । (৯) কখনও কখনও ঝিমুতে থাকবে ।